তালিকাভুক্তিতে সরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোর অনীহা

bsecনিজস্ব প্রতিবেদক :

শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্তির বিষয়ে অর্থ মন্ত্রণালয় তৎপর হলেও সরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোর অনীহার কারণে প্রক্রিয়া বাস্তবায়ন সম্ভব হয়ে উঠছে না। বিভিন্ন আইন-কানুন পরিপালন এড়ানোর জন্য সরকারি প্রতিষ্ঠানগুলো শেয়ার সরবরাহ করতে চাচ্ছে না। অর্থ মন্ত্রণালয় থেকে এ বিষয়ে বারবার তাগিদ দেয়া হলেও তা আমলে নিচ্ছে না সরকারি প্রতিষ্ঠানগুলো।

সরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোকে শেয়ারবাজারে আনার দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রতিষ্ঠান ইনভেস্টমেন্ট করপোরেশন অব বাংলাদেশ (আইসিবি) সূত্রে জানা গেছে, সরকারি ২১টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে বেশ কয়েকটি লাভজনক অবস্থানে রয়েছে। এর মধ্যে গ্যাসভিত্তিক প্রতিষ্ঠানগুলো এগিয়ে রয়েছে। তারপরও ওইসব প্রতিষ্ঠান শেয়ারবাজারে আসতে অনীহা দেখাচ্ছে।

এই তালিকায় ভালো অবস্থানে থাকা সিলেট গ্যাস ফিল্ডের পক্ষ থেকে আইসিবিকে জানানো হয়েছে, শেয়ারবাজার থেকে তাদের অর্থ উত্তোলনের প্রয়োজন নেই। ব্যবসা ভালো চলছে বিধায় শেয়ারবাজার থেকে উত্তোলন করা অর্থ কোথায় ব্যবহার করবে তা এখনো নির্ধারণ করা হয়নি। তাই তারা শেয়ারবাজারে এখনই আসতে আগ্রহী নয়।

এ মুহূর্তে শেয়ারবাজারে আসবে না বলে জানিয়েছে লোকসানি প্রতিষ্ঠানগুলোও। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল টেলিটক বাংলাদেশ লিমিটেড, বাংলাদেশ টেলিকমিউনিকেশনস কোম্পানি লিমিটেড (বিটিসিএল) ও বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স। তবে এসেনশিয়াল ড্রাগস ইতোমধ্যে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ এন্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনে (বিএসইসি) বিবরণী (প্রসপেক্টাস) জমা দিয়েছে।

এ বিষয়ে আইসিবির ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোঃ ফায়েকুজ্জামান বলেন, সরকারি শেয়ার সরবরাহের ব্যাপারে আইসিবি কাজ করে যাচ্ছে। শিগগিরিই সরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোকে নিয়ে বৈঠক করবে আইসিবি। শেয়ারবাজারে আসার আগে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন লাগে। অনুমোদন নিতে বিভিন্ন প্রক্রিয়া শেষ করতে একটু সময় লাগে। এ ক্ষেত্রে অনীহার কোনো কারণ দেখি না।

এ দিকে প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) মাধ্যমে শেয়ারবাজারে শেয়ার সরবরাহের জন্য গত ১৪ অক্টোবর অর্থ মন্ত্রণালয়ের ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের উপসচিব মোঃ নাসির উদ্দিন আহমেদ স্বাক্ষরিত একটি চিঠি ছয় মন্ত্রণালয় এবং বিএসইসিতে পাঠানো হয়েছে।

স্টকমার্কেটবিডি.কম/এইচ/সি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *