শেয়ারবাজারে বিনিেয়াগকারীদের ইতিবাচক প্রত্যাশা

high indexনিজস্ব প্রতিবেদক :
ঈদুল আজহা ও দূর্গাপুজার ৯ দিনের ছুটির পর আগামী রোববার শেয়ারবাজারগুলোয় লেনদেন শুরু হচ্ছে। বিনিয়োগকারীদের প্রত্যাশা, ঈদ-পূর্ব ঊর্ধ্বমুখী বাজারের ধারাবাহিকতা রক্ষা হবে ঈদ-পরবর্তী বাজারেও।

গত দুই মাসে মন্দা কাটিয়ে শেয়ারবাজার যেভাবে ঘুরে দাঁড়িয়েছে তা বাজারের প্রতি বিনিয়োগকারীদের আস্থার প্রতিফলন হিসেবেই দেখছেন তারা। গত রোজার ঈদের পর থেকেই দেশের শেয়ারবাজারে কিছুটা গতি পায়।

বাজারে যুক্ত হতে থাকেন নতুন নতুন বিনিয়োগকারী। একই সময়ে আইপিওর ম্যাধমে শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত হওয়া নতুন কোম্পানিগুলোও বাজারে এক ধরনের জোয়ার সৃষ্টি করে।

গত দুই মাসে ধীরে ধীরে স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরতে থাকে দেশের দুই পুঁজিবাজার। একপর্যায়ে দেশের প্রধান শেয়ারবাজারে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) লেনদেন দীর্ঘ দিন পর আবার হাজার কোটি টাকা ছাড়িয়ে যায়। ডিএসইর প্রধান সূচকটি ছাড়িয়ে যায় পাঁচ হাজার পয়েন্টের ঘর।

এ দিকে লেনদেন ও সূচকের উন্নতি বিনিয়োগকারীদের প্রত্যাশার মাত্রা আরো বাড়িয়ে দেয়। ঈদ-পূর্ব শেষ কয়েকটি কার্যদিবসে তারই প্রতিফলন ছিল।

একই সাথে বিনিয়োগকারীদের আচরণও এবার আগের যেকোনো সময়ের চেয়ে পরিপক্ব। তাই এ মুহূর্তে বাজারে বড় ধরনের কোনো সংশোধনের আশঙ্কা করছেন না সংশ্লিষ্টরা।

বিনিয়োগকারীরাও মনে করছেন, শেয়ারবাজার স্বাভাবিক অবস্থায় ফেরার পথেই রয়েছে। বাজারে ফিরেছেন দীর্ঘ দিন বাজারের বাইরে থাকা বিনিয়োগকারীদের একটি বড় অংশ। একই সাথে নতুন নতুন বিনিয়োগকারীও বাজারে যুক্ত হচ্ছেন।

ব্যাংক, বীমা, আর্থিক প্রতিষ্ঠান ও টেক্সটাইল খাতে এর প্রভাব ছিল খুবই সামান্য। এ চারটি খাতের মূল্যস্তর এখনো রয়েছে অনেকে নিচে। বিনিয়োগকারীদের স্বস্তি এখানেই।

বিনিয়োগকারীরা মনে করছেন, এত দিন ধরে যেসব খাত বিনিয়োগকারীদের নজর কাড়তে ব্যর্থ হয়েছে এবার তাদের দিকেই নজর থাকবে সবার। কারণ শেয়ারবাজারে বরাবরই ব্যাংক, বীমা ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানে অন্যান্য খাতের চেয়ে স্বচ্ছতা ছিল। সম্প্রতি মৌলভিত্তির দিক থেকেও খাতগুলো তুলনামূলকভাবে এগিয়ে যাচ্ছে বলে ধারণা করেছন শেয়ারবাজার সংশ্লিষ্টরা।

স্টকমার্কেবিডি.কম/এআর/সি

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *