ভারতে বেড়েছে সেনসেক্স ও আইটি খাত

sensexস্টকমার্কেট ডেস্ক :

ভারতের প্রধান শেয়ারবাজার বোম্বে স্টক এক্সচেঞ্জে (বিএসই) বেড়েছে সেনসেক্স। তৃতীয় প্রান্তিকে ভালো মুনাফা করায় লেনদেনে এগিয়ে রয়েছে আইটি খাতের কোম্পানিগুলাে।

বোম্বে স্টক এক্সচেঞ্জে (বিএসই) সেনসেক্স .৬৭ শতাংশ বা ১৮৩ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৭,৪৫৮ পয়েন্টে আর ন্যাশনাল স্টক এক্সচেঞ্জে (এনএসই) নিফটি সূচক .৬১ শতাংশ বা ৫০ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৮,২৮৪ পয়েন্টে।

এদিন সেনসেক্স সর্বোচ্চ ২৭,৫০৭ পয়েন্টে ওঠে আর সর্বনিম্ন ২৭,১১৯ পয়েন্টে নেমে যায়। অন্যদিকে নিফটি সর্বোচ্চ ৮,৩০৩ পয়েন্টে ওঠে আর সর্বনিম্ন ৮,১৯০ পয়েন্টে নামে।
বিএসইতে মিডক্যাপ .০৫ শতাংশ বা ৫.৩৮ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১০,৪২৬ পয়েন্টে। আর এসএমএল ক্যাপ ১২ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১১,১৩৮ পয়েন্টে।

এদিন লেনদেনের এগিয়ে ছিল তথ্য ও প্রযুক্তি খাতের শেয়ার।

এদিন বিএসইতে মোট ৩১৫৯ টি কোম্পানির শেয়ারের লেনদেন হয়েছে, যার মধ্যে দর বেড়েছে ১৪২৭টি, কমেছে ১৬০০ আর অপরিবর্তিত ছিল ১৩২ টির।

লেনদেনের শীর্ষে ছিল- হিন্দুস্থান ইউনিলিভার, ইনফোস লিমিটেড, রেডি‌স ল্যাবরেটরি, টাটা কন্সালটেন্সি প্রভৃতি।

স্টকমার্কেটবিডি.কম/কেসি/এলকে

সাপ্তাহিক লেনদেনে দ্বিতীয় স্থানে অগ্নি সিস্টেমস

Agni_Logoস্টকমার্কেট ডেস্ক :

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) গত সপ্তাহে মোট লেনদেনের ৩ দশমিক ৩৭ শতাংশ ছিল তথ্যপ্রযুক্তি খাতের কোম্পানি অগ্নি সিস্টেমসের।

সপ্তাহজুড়ে এর মোট ৩৭ কোটি ৫৬ লাখ ৭০ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। ফলে কোম্পানিটি উঠে আসে তালিকার দ্বিতীয় স্থানে। এদিকে গত সপ্তাহে শেয়ারটির দর বাড়ে ৬ দশমিক ৫৯ শতাংশ।

বাজার পর্যবেক্ষণে দেখা যায়, ডিএসইতে সর্বশেষ কার্যদিবসে এ শেয়ারের দর বাড়ে ৪ দশমিক ৬৮ শতাংশ বা ১ টাকা ৬০ পয়সা। দিনভর এর দর ৩৪ টাকা থেকে ৩৬ টাকার মধ্যে ওঠানামা করে। সর্বশেষ লেনদেন হয় ৩৫ টাকা ৮০ পয়সায়, যা সমন্বয় শেষে দাঁড়ায় ৩৫ টাকা ৬০ পয়সায়।

স্টকমার্কেটবিডি.কম/এম/এএআর

ডিএসইতে পিই বেড়েছে দশমিক ১২ পয়েন্ট

peনিজস্ব প্রতিবেদক :

গত সপ্তাহে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) সার্বিক মূল্য আয় অনুপাত (পিই রেশিও) সামান্য বেড়েছে। যা আগের সপ্তাহের তুলনায় দশমিক ১২ পয়েন্ট বেশি। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

ডিএসই তথ্য অনুযায়ী, গত সপ্তাহে পিইও অবস্থান করছে ১৮ দশমিক ১৩ পয়েন্টে। আগের সপ্তাহে ডিএসইতে এই পিই রেশিও ছিল ১৮ দশমিক ১  পয়েন্ট।

বিশ্লেষকদের মতে, গত সপ্তাহে বেশিরভাগ শেয়ারের দর বাড়ার কারণে পিই রেশিও বেড়ে গেছে। তবে পিই রেশিও  ১৫ ঘরে থাকলে বিনিয়োগ নিরাপদ বলে মনে করেন তারা।

ডিএসই তথ্য পর্যালোচনা করলে দেখা যায়, ব্যাংকিং খাতের পিই রেশিও অবস্থান করছে ৯ দশমিক ৪০ পয়েন্টে, মিউচ্যুয়াল ফান্ড খাতে ৮ দশমিক ৪ পয়ন্টে, এনবিএফআই খাতের  ২০ দশমিক ৬ পয়েন্টে, সিমেন্ট খাতের ৩৭ দশমিক ১ পয়েন্ট।

বস্ত্র খাতের ১২ দশমিক ২ পয়েন্ট, জ্বালানি ও বিদ্যুৎ খাতে  ১৪  পয়েন্ট, ওষুধ ও রসায়ন খাতের ২৭ দশমিক ১ পয়েন্ট, তথ্য ও প্রযুক্তি খাতের ২৫ দশমিক  ৫ পয়েন্টে, সিরামিক খাতের ৩৩ দশমিক ৪ পয়েন্টে, প্রকৌশল খাতে ২২  দশমিক ৯০ পয়েন্ট ও খাদ্য ও আনুষাঙ্গিক খাতের পিইও ৩৪ দশমিক ৮ পয়েন্ট।

এছাড়া পাট শিল্প খাতের ৮১ পয়েন্ট, বিবিধ খাতের  ৩৯ দশমিক ২ পয়েন্ট, কাগজ খাতের  ৮ দশমিক ৫ পয়েন্ট,  সেবা ও আবাসন খাতের  ৪১ দশমিক ২ পয়েন্ট, চামড়া খাতের ২০ দশমিক ১ পয়েন্ট, টেলিযোগাযোগ খাতে  ৩৩ দশমিক ৯ পয়েন্ট, এবং ভ্রমণ ও অবকাশ খাতে ১৫  দশমিক  ২ পয়েন্টে অবস্থান করছে।

স্টকমার্কেটবিডি.কম/এম/এএআর