সামিট পাওয়ারের ইপিএস বেড়েছে

summitস্টকমার্কেট ডেস্ক :

শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানি সামিট পাওয়ারের শেয়ার প্রতি কনসুলেটেড আয় (ইপিএস) হয়েছে ২ টাকা ২ পয়সা। যা আগের বছরের তুলনায় ২১ শতাংশ বেশি। আগের বছর একই সময় কোম্পানিটির ইপিএস ছিল ১ টাকা ৬৭ পয়সা।

কোম্পানিটির অর্ধবার্ষিকী প্রান্তিকের (জানুয়ারি, ১৫ – জুন, ১৫) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদনে এ তথ্য বেরিয়ে আসে।

ডিএসই সূত্রে জানা গেছে, হিসাব বছরের প্রথম ৬ মাসে কোম্পানিটির কর পরবর্তী কনসুলেটেড মুনাফা করেছে ১৫৬ কোটি ৩৪ লাখ টাকা। আগের বছর একই সময়ে কোম্পানিটি মুনাফা করেছিল ১২০ কোটি ৩৯ লাখ টাকা।

উল্লেখ্য, গত ৩ মাসে (এপ্রিল,১৫ – জুন,১৫) কোম্পানিটি কর পরবর্তী কনসুলেটেড মুনাফা করেছে ৮৬ কোটি ৮৮ লাখ টাকা। আর শেয়ার প্রতি আয় করেছে ১ টাকা ১২ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে কোম্পানিটির মুনাফা করেছিল ৬৯ কোটি ৬৯ লাখ টাকা। আর শেয়ার প্রতি আয় করেছিল ৯৭ পয়সা।

স্টকমার্কেটবিডি.কম/বি

বন্ধের আগে আর একদিন লেনদেন

DSE_CSE-smbdস্টকমার্কেট ডেস্ক :

পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে দেশের শেয়ারবাজারে ৬ দিন লেনদেন বন্ধ থাকবে। বন্ধের আগে আর একদিন অর্থ্যাৎ আজই হবে শেষ লেনদেন। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা যায়।

আগামী ১৫ জুলাই থেকে ২০ জুলাই পর্যন্ত লেনদেন বন্ধের পাশাপাশি শেয়ারবাজারের যাবতীয় কার্যক্রমও বন্ধ থাকবে। আর সে হিসাবে আজ মঙ্গলবার (১৪ জুলাই) শেয়ারবাজার বন্ধের আগে শেষ লেনদেন।

ঈদের ছুটির পর ২১ জুলাই থেকে শেয়ারবাজারে লেনদেন আবারো শুরু হবে। আগের নিয়মে সকাল সাড়ে ১০টা থেকে বেলা আড়াইটা পর্যন্ত লেনদেন হবে।

প্রসঙ্গত: রমজান মাসে সাড়ে ১০টা থেকে বেলা দেড়টা পর্যন্ত লেনদেন হয়।

স্টকমার্কেটবিডি.কম/বি

সেন্ট্রাল ইন্স্যুরেন্সের পরিচালকদের শেয়ার হস্তান্তর

central-smbdস্টকমার্কেট ডেস্ক :

শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত বীমা খাতের কোম্পানি সেন্ট্রাল ইন্স্যুরেন্সের উদ্যোক্তা মীর রহমত আলী শেয়ার হস্তান্তরের ঘোষণা দিয়েছেন। এই উদ্যোক্তা পরিচালক ১ লাখ ৫৫ হাজার শেয়ার হস্তান্তর করবেন। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সূত্র জানায়, রহমত আলীর কাছে মোট ১ লাখ ৬৯ হাজার ২৪টি শেয়ার রয়েছে। এর মধ্যে থেকে উল্লেখিত পরিমাণ শেয়ার রহমত আলীর পুত্র মীর জাহানজেব আলীর কাছে হস্তান্তর করা হবে।

উল্লেখ্য, এই উদ্যোক্তা পরিচালক আগামী ৩০ কার্যদিবসের মধ্যে ডিএসইর সম্মতি নিয়ে শেয়ার হস্তান্তর করতে পারবেন।

স্টকমার্কেটবিডি.কম/বি

স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংকের ১৭ লাখ শেয়ার বিক্রি

standardস্টকমার্কেট ডেস্ক :

শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত ব্যাংকিং খাতের কোম্পানি স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংক লিমিটেডের একজন উদ্দোক্তা পরিচালক ১৭ লাখ শেয়ার বিক্রয়ের ঘোষণা দিয়েছেন। ঢাকা স্টক একচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

হারুন অর রশিদ নামে এই পরিচালক ৩০ কার্যদিবসের মধ্যে বাজার দরে এ সব শেযার বিক্রয় করবেন।

তার কাছে ব্যাংকের মোট ২ কোটি ৪৩ লাখ ৪১ হাজার ৮৫০টি শেয়ার রয়েছে। এর মধ্য থেকে তিনি এ ১৬ লাখ ৯৬ হাজার শেয়ার বিক্রি করবেন বলে ঘোষণা দিয়েছেন।

স্টকমার্কেটবিডি.কম/বি

  1. এসিআই লিমিটেড
  2. গ্রামীণফোন
  3. আরকে সিরামিকস
  4. খুলনা পাওয়ার
  5. লাফার্জ সুরমা সিমেন্ট
  6. অলিম্পিক এক্সেসরিজ
  7. বেক্সিমকো ফার্মা
  8. ইউনাইটেড এয়ার
  9. বেক্সিমকো
  10. এসিআই ফরমুলেশন্স।

ডিএসইতে লেনদেন ৫৯ কোটি টাকা কম

dseনিজস্ব প্রতিবেদক :

দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) লেনদেন আগের দিনের চেয়ে ৫৯ কোটি টাকা কমেছে। তবে এদিন সব ধরণের মূল্য সূচক বৃদ্ধি পেয়েছে। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা যায়।

সোমবার সপ্তাহের ২য় দিনে ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৪৯৪ কোটি ৩২ লাখ টাকা। গতকাল রবিবার ৫৫৩ কোটি ৭৫ লাখ টাকা লেনদেন হয়েছিল। সে তুলনায় রবিবার লেনদেন কমেছে প্রায় ৫৯ কোটি টাকা।

এদিন ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স আগের দিনের তুলনায় ১৩ পয়েন্ট বেড়ে দিনশেষে ৪৬২৮ পয়েন্টে গিয়ে দাঁড়িয়েছে। এ নিয়ে টানা ৫ দিন সূচকের ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতায় শেষ হয়েছে দিনের লেনদেন।

লেনদেনে অংশ নেয়া ৩২১ টি কোম্পানির শেয়ারের মধ্যে ১৬৩ টির দর বেড়েছে, কমছে ১১৫ ও অপরিবর্তিত রয়েছে ৪৩টির দর।

লেনদেনের শীর্ষে উঠে এসেছে এসিআই লিমিটেড, গ্রামীণফোন, আরকে সিরামিকস, খুলনা পাওয়ার, লাফার্জ সুরমা সিমেন্ট, অলিম্পিক এক্সেসরিজ, বেক্সিমকো ফার্মা, ইউনাইটেড এয়ার, বেক্সিমকো ও এসিআই ফরমুলেশন্স।

স্টকমার্কেটবিডি.কম/এম/জেড

স্ট্যান্ডার্ড ইন্স্যুরেন্স নিবন্ধন সনদ হারাচ্ছে!

standard-smbdনিজস্ব প্রতিবেদক :

আইন লঙ্ঘন করে ব্যবসা পরিচালনা করার অভিযোগে বিমা ব্যবসার নিবন্ধন সনদ হারাতে যাচ্ছে শেয়ারবাজারে তালিকাভূক্ত স্ট্যান্ডার্ড ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেড।

সুপ্রিম কোটের আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গবেঞ্চের রায়ে কোম্পানিটির ভাগ্য নির্ধারিত হবে। এ বিষয়ে আগামী ৩০ জুলাই শুনানির জন্য দিন নির্ধারিত রয়েছে।

আপিলের রায় স্ট্যান্ডার্ড ইন্স্যুরেন্স’র বিরুদ্ধে গেলে প্রতিষ্ঠানটি নতুন করে আর কোন বিমা পলিসি বিক্রি করতে পারবে না। অর্থাৎ বিমা ব্যবসার সনদ হারাবে কোম্পানিটি। আর এমনটি হলে অনিয়মের কারণে সনদ বাতিল হওয়া দেশের প্রথম বিমা কোম্পানি হবে স্ট্যান্ডার্ড ইন্স্যুরেন্স।

বিষয়টি নিয়ে বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ’র (আইডিআরএ) চেয়ারম্যন এম শেফাক আহমেদ বলেন, স্ট্যান্ডার্ড ইন্স্যুরেন্স যে অনিয়ম করেছে ২০১০ সালের বিমা আইন অনুযায়ী কোম্পানির সনদ বাতিল হয়ে যাবে।

কোম্পানির সনদ বাতিল হলে পলিসি গ্রাহকদের কি হবে জানতে চাইলে শেফাক আহমেদ বলেন, যেসব পলিসি বিক্রি করা হয়েছে, এক বছর পর সেগুলোর মেয়াদ পূর্ণ হলে গ্রাহকের পাওনা পরিশোধ করবে কোম্পানি। আর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করায় কোম্পানিটি নতুন পলিসি বিক্রি করতে পারবে না।

প্রতিষ্ঠানটির শেয়ারহোল্ডাদের কি হবে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আইন অনুযায়ী যা হওয়ার তাই হবে। তবে স্ট্যান্ডার্ড ইন্স্যুরেন্সের অনিয়ম সনদ বাতিলযোগ্য। এটি (সনদ বাতিল) বন্ধ করতে হলে বিমা আইন পরিবর্তন করতে হবে।

আইডিআরএ সূত্রে জানা গেছে, সন্তোষজনকভাবে পুনঃবিমা ব্যবস্থাকার্য সম্পাদনে ব্যর্থ হওয়ায় গত ২১ জুন থেকে প্রতিষ্ঠানটির নিবন্ধন সনদ তিন মাসের জন্য স্থগিত করা হয়। একই সঙ্গে নিবন্ধন সনদ কেন বাতিল করা হবে না ৩০ দিনের মধ্যে তার কারণ দর্শাতে বলা হয়।

পাশাপাশি নিবন্ধন সনদ স্থগিতাদেশ প্রত্যাহার না হওয়া পর্যন্ত কোন নতুন বিমা কাভারনোট, বিমা সার্টিফিকেট বা বিমা পলিসি জারি (ইস্যু) না করার নির্দেশ দেওয়া হয়। তবে ২১ জুনের আগে জারিকৃত বিমা পলিসির কার্যক্রম চালু রাখার সুযোগ রাখা হয়।

এর আগে গত ৩১ মে স্ট্যান্ডার্ড ইন্স্যুরেন্স আইডিআরএকে দেওয়া এক চিঠিতে স্বীকার করে স্ট্যান্ডার্ড গ্রুপের কিছু বিমা পলিসির ক্ষেত্রে মোট ৪৬ কোটি ৩৩ লক্ষ টাকার ঝুঁকি পুনঃবিমা করা হয়নি। এরই পরিপ্রেক্ষিতে প্রতিষ্ঠানটির সনদ স্থগিতের সিদ্ধান্ত নেয় আইডিআরএ।।

স্টকমার্কেটবিডি.কম/এম/বি

সামিট পূর্বাঞ্চলের আয় ও মুনাফা বৃদ্ধি

summitস্টকমার্কেট ডেস্ক :

শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত তালিকাভুক্ত সামিট পূর্বাঞ্চল পাওয়ার কোম্পানি (এসপিসিএল) গত বছরের তুলনায় শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস)ও কর পরবর্তী মুনাফা বেড়েছে। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

অর্থবছরের প্রথম ৬ মাসের (জানুয়ারি ’১৫ থেকে জুন ’১৫) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী, কোম্পানিটি কর পরবর্তী মুনাফা করেছে ৪৩ কোটি ১ লাখ ৭০ হাজার টাকা এবং শেয়ারপ্রতি আয় করেছে ২.৮৩ টাকা।

আগের বছরে একই সময়ে এসপিসিএলের করপরবর্তী মুনাফার পরিমাণ ছিল ৩৪ কোটি ৪২ লাখ ৩০ হাজার টাকা এবং শেয়ারপ্রতি আয়ের পরিমাণ ছিল ২.২৬ টাকা। সে হিসাবে আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় কোম্পানিটির আয় বেড়েছে ২৫.২২ শতাংশ।

অপরদিকে দ্বিতীয় প্রান্তিকের (এপ্রিল ’১৫ থেকে জুন ’১৫) অনিরীক্ষিত হিসাব অনুযায়ী এসপিসিএলের করপরবর্তী মুনাফার পরিমাণ ২০ কোটি ৩১ লাখ ৮০ হাজার টাকা এবং শেয়ারপ্রতি আয়ের পরিমাণ ১.৩৪ টাকা। আগের অর্থবছরে একই সময়ে কোম্পানিটির কর পরবর্তী মুনাফার পরিমাণ ছিল ১৮ কোটি ৩৯ লাখ টাকা এবং শেয়ারপ্রতি আয়ের পরিমাণ ছিল ১.২১ টাকা।

স্টকমার্কেটবিডি.কম/এম/বি

হেডেলবার্গ সিমেন্টের দর বাড়ার কারণ নেই

hedelস্টকমার্কেট ডেস্ক :

শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানি হেডেলবার্গ সিমেন্টের শেয়ার দর বাড়ার পিছনে কোনো কারণ বা মূল্য সংবেদনশীল তথ্য নেই। শেয়ারটির অস্বাভাবিক দর বাড়ার পেছনে কারণ জানতে চাইলে কোম্পানি কর্তৃপক্ষ এমনটাই জানায় ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জকে (ডিএসই)।

বিশ্লেষণে দেখা যায়, গত ৫ কার্যদিবসে প্রতিদিনই শেয়ারটির দর বেড়েছে প্রায় ৮০ টাকা। গত ৫ জুলাই শেয়ারটির দর ছিল ৫৭৫ টাকা। গতকাল ১২ জুলাই লেনদেন শেষ হয় ৬৫৫ টাকায়।

এই ৫ দিনের মধ্যে মাত্র এক দিন শেয়ারটির দর কমেছে।

কোম্পানির শেয়ারের এই দর বাড়াকে অস্বাভাবিক বলে মনে করছেন ডিএসই কর্তৃপক্ষ।

ডিএসই সূত্রে জানা গেছে, শেয়ারটির অস্বাভাবিক দর বাড়ার পেছনে কারণ জানতে চেয়ে ডিএসই নোটিস পাঠায়। ্টে সময় হেডেলবার্গ সিমেন্ট জানায়, কোনো রকম মূল্য সংবেদনশীল তথ্য ছাড়াই শেয়ারটির দর বাড়ছে।

স্টকমার্কেটবিডি.কম/এম/বি

খাঁন ব্রাদার্সের মূল্য সংবেদনশীল তথ্য নেই

Khan_Br_PP_Bagস্টকমার্কেট ডেস্ক :

শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত প্রকৌশল খাতের কোম্পানি খাঁন ব্রাদার্স পিপি ওভেন ব্যাগ ইন্ডাস্ট্রিজের শেয়ার দর বাড়ার পিছনে কোনো মূল্য সংবেদনশীল তথ্য নেই। শেয়ারটির অস্বাভাবিক দর বাড়ার পেছনে কারণ জানতে চাইলে কোম্পানি কর্তৃপক্ষ এমনটাই জানায় ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জকে (ডিএসই)।

বিশ্লেষণে দেখা যায়, গত ৯ কার্যদিবসে প্রতিদিনই শেয়ারটির দর বেড়েছে প্রায় ৫ টাকা। গত ২৮ জুন শেয়ারটির দর ছিল ২৪.৬০ টাকা। গতকাল ১২ জুলাই লেনদেন শেষ হয় ২৯.৫০ টাকায়।

এই ৯ দিনের মধ্যে ৩ দিন শেয়ারটির দর কমেছে।

কোম্পানির শেয়ারের এই দর বাড়াকে অস্বাভাবিক বলে মনে করছেন ডিএসই কর্তৃপক্ষ।

ডিএসই সূত্রে জানা গেছে, শেয়ারটির অস্বাভাবিক দর বাড়ার পেছনে কারণ জানতে চেয়ে ডিএসই নোটিস পাঠায়। এর জবাবে খাঁন ব্রাদার্স পিপি ওভেন ব্যাগ ইন্ডাস্ট্রিজ জানায়, কোনো রকম মূল্য সংবেদনশীল তথ্য ছাড়াই শেয়ারটির দর বাড়ছে।

স্টকমার্কেটবিডি.কম/এম/বি