আইটিসির ১ম প্রান্তিকে লোকসান

ITC-Logo-230x155নিজস্ব প্রতিবেদক :

সদ্য আইপিও পক্রিয়া সম্পন্ন করা আইটি কনসালটেন্স লিমিটেডে চলতি বছরের প্রথম প্রান্তিকে লোকসান হয়েছে। লেনদেন শুরুর একদিন আগে এই প্রতিবেদনটি প্রকাশ করা হয়েছে।

চলতি ২০১৫ সালের প্রথম প্রান্তিকে (জুলাই থেকে সেপ্টেম্বর) লোকসান গুনেছে এ কোম্পানিটি। এ সময়ে কোম্পানিটির লোকসান হয়েছে ৪১ লাখ ৪০ হাজার টাকা। আর শেয়ারপ্রতি এ লোকসানের পরিমাণ হচ্ছে ৬ পয়সা।

আগামী ১০ জানুয়ারি থেকে শেয়ারবাজারে লেনদেন শুরু হতে যাচ্ছে এ কোম্পানিটির। লেনদেন শুরুর প্রাক্কালে কোম্পানির অনিরীক্ষিত আর্থিক হিসাব প্রকাশ করেছে।

স্টকমার্কেটবিডি.কম/এমএ/এলকে

সপ্তাহের গড় লেনদেন ৫০০ কোটি টাকা ছাড়িয়ে

DSE_CSE-smbdনিজস্ব প্রতিবেদক :

বছরের প্রথম সপ্তাহেই গড় লেনদেন ৫০০ কোটি টাকা ছাড়িয়েছে। সপ্তাহ শেষে গড় লেনদেন হয়েছে ৫৪২ কোটি ৭৯ লাখ টাকা। বিদায়ী বছরের শেষ সপ্তাহে এর পরিমাণ ছিল ৩৮৭ কোটি ৭১ লাখ টাকা। এ হিসাবে নতুন বছরের প্রথম সপ্তাহে লেনদেন বেড়েছে ৪০ শতাংশ।

চলতি বছরের প্রথম সপ্তাহে ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ২ হাজার ৭১৩ কোটি ৯৬ লাখ টাকা। আগের সপ্তাহে এ লেনদেনের পরিমাণ ছিল ১ হাজার ৯৩৮ কোটি ৫৭ লাখ টাকা।

এদিকে শুধু আর্থিক লেনদেনেই নয়, নতুন বছরে সূচক ও বাজার মূলধনের পরিমাণও বেড়েছে।

সপ্তাহজুড়ে লেনদেন হওয়া ৩২৫টি ইস্যুর মধ্যে দর বেড়েছে ১৮৮টির, কমেছে ১১৪টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২৩টির দর।

বেশিরভাগ কোম্পানির শেয়ারের দর বৃদ্ধিতে ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স আগের সপ্তাহের তুলনায় ৪৬.৪৪ পয়েন্ট বেড়েছে। সূচক বাড়ার এ হার ১ শতাংশ। ৪৬২৯.৬৪ পয়েন্ট দিয়ে যাত্রা শুরুর পর সপ্তাহ শেষে তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪৬৭৬.০৮ পয়েন্টে। আগের সপ্তাহে সূচক বেড়েছিল ২১.৩২ পয়েন্ট।

এ ছাড়া ডিএসই৩০ সূচক ১.১৮ শতাংশ বা ২০.৭০ পয়েন্ট বেড়ে ১৭৭১.২৯ পয়েন্টে এবং শরিয়াহ সূচক ১.৭৯ শতাংশ বা ১৯.৭৮ পয়েন্ট বেড়ে সপ্তাহ শেষে ১১২৬.৯০ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে।

আগের সপ্তাহের তুলনায় ডিএসইর বাজার মূলধন বেড়েছে ০.৭৬ শতাংশ। সপ্তাহের শুরুতে ডিএসইর বাজার মূলধনের পরিমাণ ছিল ৩ লাখ ১৫ হাজার ৯৭৫ কোটি টাকা। সপ্তাহ শেষে তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩ লাখ ১৮ হাজার ৩৭৯ কোটি টাকায়।

সপ্তাহ শেষে লেনদেনের শীর্ষে রয়েছে ইউনাইটেড পাওয়ার। সপ্তাহজুড়ে এ কোম্পানির ১২২ কোটি ৭৫ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। সপ্তাহের মোট লেনদেনের ৪.৫০ শতাংশ লেনদেন হয়েছে এ কোম্পানির।

স্টকমার্কেটবিডি.কম/এমএ/এলকে

আইপিও শেয়ারে বিনিয়োগকারীদের আগ্রহ কমছে

ipoনিজস্ব প্রতিবেদক :

শেয়ারবাজারে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের একটা বড় অংশ প্রাইমারি বা আইপিও মার্কেটে জড়িত। কিন্তু আইপিও কোম্পানি বাজারে এসে অভিহিত মূল্যের চেয়ে খুব বেশি দর বেশি না পাওয়ায় হতাশ তারা। আবার কোম্পানিগুলোর দর কম হওয়ায় এসব কোম্পানির ভিত্তি বিবেচনায় নিজেদের ব্যর্থতাকে স্বীকার করছেন তারা।

অনুমোদন পাওয়া আইসিটি কোম্পানি আগামীকাল লেনদেন হবে। ইতোমধ্যে কোম্পানিটি তাদের প্রথম প্রান্তিকের আর্থিক প্রতিবেদন জমা দিয়েছে। সেখানে লোকসান দেখিয়েছে কোম্পানিটি। এ অবস্থায় আইসিটির দর নিয়ে আশংকায় আছে বিনিয়োগকারীরা।

নতুন তালিকাভুক্ত পোশাক খাতের কোম্পানি তশরিফা ইন্ডাস্ট্রিজ ও রিজেন্ট টেক্সটাইলের ১০ টাকা অভিহিত মূল্য বা ফেসভ্যালুর সঙ্গে ১৬ টাকা অধিমূল্য বা প্রিমিয়াম যোগ করে আইপিওতে তশরিফার প্রতিটি শেয়ারের বিক্রয়মূল্য ছিল ২৬ টাকা। লেনদেন শুরুর প্রথম দিনে এটির সর্বোচ্চ দাম উঠেছিল ৩৬ টাকায়। এরপর দাম কমতে কমতে সর্বশেষ গত বৃহস্পতিবার বাজারে কোম্পানিটির প্রতিটি শেয়ার বিক্রি হয় ১৭ টাকা ৭০ পয়সায়।

রিজেন্ট টেক্সটাইলের আইপিও শেয়ার নিয়ে আরও বাজে পরিস্থিতির মুখোমুখি হতে হয় বিনিয়োগকারীদের। লেনদেন শুরুর দ্বিতীয় দিনেই এটির শেয়ারের বাজারমূল্য আইপিও দামের নিচে নেমে যায়। ১০ টাকা অভিহিত মূল্যের সঙ্গে ১৫ টাকা অধিমূল্য যোগ করে রিজেন্ট টেক্সটাইলের প্রতিটি শেয়ারের আইপিও মূল্য ছিল ২৫ টাকা। লেনদেনের প্রথম দিনে এটির সর্বোচ্চ দাম উঠেছিল ২৫ টাকা ৫০ পয়সায়। সর্বশেষ বৃহস্পতিবার কোম্পানিটির প্রতিটি শেয়ারের বাজারমূল্য ছিল প্রায় সাড়ে ১৯ টাকা।

ক্ষেত্রবিশেষে আইপিও শেয়ারেও লোকসান গুনতে হচ্ছে বিনিয়োগকারীদের। এ অবস্থায় আইপিও অনুমোদনের ক্ষেত্রে নিয়ন্ত্রক সংস্থাদের পর্যবেক্ষনকেও দায়ি করছে আইপিও ধারীরা। তাদের দাবি, কোম্পানিটির মৌল ভিত্তি আর তালিকাভুক্তির প্রস্তুতি দেখে এই সব অনুমোদন দেওয়া উচিত। তাহলে এ বাজার ধরে রাখা সম্ভব হবে।

স্টকমার্কেটবিডি.কম/এমএ/এলকে