1. লিন্ডে বিডি
  2. বেক্সিমকো ফার্মা
  3. ইউনাইটেড এয়ার
  4. আরএকে সিরামিকস
  5. স্কয়ার ফার্মা
  6. সিটি ব্যাংক
  7. বিএসসিসিএল
  8. অলিম্পিক ইন্ডাস্ট্রিজ
  9. এ্যাপোলো ইস্পাত
  10. বেক্সিমকো ।

উভয় বাজারেই লেনদেনে পতন

DSE_CSE-smbdনিজস্ব প্রতিবেদক :

সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস বৃহস্পতিবার উভয় বাজারেই লেনদেনে পতন হয়েছে। এদিন দুই বাজারেই কমেছে লেনদেনের পরিমান। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ (সিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

ডিএসইর তথ্য অনুযায়ী, বৃহস্পতিবার ডিএসইতে ৩৪২ কোটি ৪৫ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে।গতকাল বুধবার লেনদেন হয়েছিল ৪১৪ কোটি ৬২ লাখ টাকার শেয়ার।

দিনভর ডিএসইতে লেনদেনে অংশ নেয় ৩২৪টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ১৪৯টির, কমেছে ১২২টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৫৩টি শেয়ার দর।

ডিএসইএক্স বা প্রধান মূল্য সূচক ২ পয়েন্ট কমে ৪ হাজার ৫৭১ পয়েন্টে অবস্থান করছে। ডিএসইএস বা শরীয়াহ সূচক দশমিক ৪৪ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে এক হাজার ১০৮ পয়েন্টে। ডিএস৩০ সূচক ৪ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে এক হাজার ৭৪২ পয়েন্টে।

টাকার পরিমাণে ডিএসইতে লেনদেনের শীর্ষে থাকা দশ কোম্পানি হচ্ছে- লিন্ডে বিডি, বেক্সিমকো ফার্মা, ইউনাইটেড এয়ারওয়েজ (বিডি) লিমিটেড, আরএকে সিরামিকস বাংলাদেশ লিমিটেড, স্কয়ার ফার্মা, সিটি ব্যাংক, বিএসসিসিএল, অলিম্পিক ইন্ডাস্ট্রিজ, এ্যাপোলো ইস্পাত কমপ্লেক্স লিমিটেড এবং বাংলাদেশ এক্সপোর্ট ইমপোর্ট কোম্পানি লিমিটেড।

বৃহস্পতিবার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সিএসই সার্বিক সূচক ১২ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ১৪ হাজার ৭৯ পয়েন্টে। সিএসইতে মোট লেনদেন হয়েছে ২৩২টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের শেয়ার। এর মধ্যে দর বেড়েছে ৯০টির, কমেছে ১০১টি এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৪১টির। এদিন সেখানে ২৫ কোটি টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে।

স্টকমার্কেটবিডি.কম/এমএ

‘তিতাস গ্যাস বিনিয়োগকারীর স্বার্থ ক্ষুণ্ন করেছে’

titas-gasনিজস্ব প্রতিবেদক :

শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত রাষ্ট্রায়াত্ত তিতাস গ্যাস লিমিটেড এনার্জি রেগুলেটরি কমিশনের পক্ষ থেকে কমিশন কমানোর বিষয়‌টি সাধারণ বিনিয়োগকারীর কাছে গোপন রাখা হয়। এখানে বিনিয়োগকারীর স্বার্থ সম্পূর্ণরূপে ক্ষুন্ন করা হয়েছে বলে ম‌ন্তব্য কর‌ছেন ডিএসই ব্রোকারেজ অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের সভাপতি আহসানুল ইসলাম টিটু।

মতিঝিলে ডিএসই মেম্বারস ক্লাবে বৃহস্পতিবার দুপুরে এক সংবাদ সম্মেলনে এ মন্তব্য করেন তিনি।

আহসানুল ইসলাম টিটু বলেন, ‘২০১০ ও ১৯৯৬ সালের শেয়ারবাজার ধস নিয়ে তথ্যভিত্তিক কোনো রিপোর্ট আসে নাই। যে কারণে দোষীদের শাস্তির আওতায় আনা সম্ভব হয়নি। কিন্তু তারা যদি নিয়ন্ত্রক সংস্থা নিয়ে নেতিবাচক মন্তব্য করে তা আমাদের কাছে গভীর ষড়যন্ত্রের চক্র হিসেবে মনে হয়।’

টিটু বলেন, ‘গত ২৫ তারিখ বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) চেয়ারম্যানের পদত্যাগের বিষয়ে নিউজ প্রকাশিত হয়। যে বিষয়ে দায়িত্বশীল পর্যায় থেকে কেউ কেউ এ নেতিবাচক মন্তব্য করেছেন। এ মন্তব্যের ফলে শেয়ারবাজারে নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে। পরিসংখ্যানে দেখা গেছে, ২৫ জানুয়ারি থেকে ৩ ফেব্রুয়ারি এ কয়েকদিনে শেয়ারবাজারের বাজার মূলধন কমেছে ২৪০০ কোটি টাকা। তাই অনুমান করে কোনো মন্তব্য করা ঠিক না। কারণ এতে শেয়ারবাজারে ক্ষতিগ্রস্ত হয়।’

তিতাস গ্যাস কোম্পানি ২০১৪-১৫ অর্থবছরে শেয়ারপ্রতি প্রায় ৯ টাকা আয় করে বলে জানান আহসানুল ইসলাম টিটু। কিন্তু লভ্যাংশ ঘোষণা করে ১৫ শতাংশ। যে কোম্পানিটি আগে ধারাবাহিকভাবে ৩০ শতাংশ বা তার ওপরে লভ্যাংশ প্রদান করে। তিতাস গ্যাসের এ আচরণে কোম্পানিটিসহ তালিকাভুক্ত সরকারি আরও ৬টি কোম্পানির উপরেও নেতিবাচক প্রভাব পড়ে। দেখা গেছে ৩০ আগস্ট সরকারি ৭ কোম্পানির বাজার মূলধন ছিল ১৮ হাজার ৯৫১ কোটি টাকা। যা ৩ ফেব্রুয়ারি ৫ হাজার ৪১৩ কোটি টাকা কমে দাঁড়িয়েছে ১৩ হাজার ৫৩৮ কোটি টাকায়।

সংবাদ সম্মেলনের আরও উপস্থিত ছিলেন—ডিএসইর সাবেক পরিচালক খুজিস্তা নূর-ই নাহরীন মুন্নি, মিনহাজ মান্নান ইমন প্রমুখ।

স্টকমার্কেটবিডি.কম/এমএ

একমির শেয়ার বিক্রি হচ্ছে ৮৫.২০ টাকায়

acmeeনিজস্ব প্রতিবেদক :

বুক বিল্ডিং পদ্ধতিতে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের কাছে ৮৫ টাকা ২০ পয়সা দরে বিক্রি হচ্ছে একমি ল্যাবরেটরিজ লিমিটেডের সব শেয়ার। এটি নিলামে প্রস্তাবিত সর্বোচ্চ দর।

প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের জন্য একমির দুই কোটি শেয়ার সংরক্ষিত থাকলেও মঙ্গলবার রাত পর্যন্ত সর্বোচ্চ দরে পাঁচ কোটি ৫৯ লাখ শেয়ার কেনার জন্য প্রস্তাব দিয়েছে ১১০টি প্রতিষ্ঠান। মোট ১৪০টি বিডের মাধ্যমে এ প্রস্তাব করা হয়েছে। প্রস্তাবকৃত শেয়ারের মূল্য দাঁড়ায় ৪৭৬ কোটি ৭৩ লাখ টাকা। প্রতিষ্ঠানটি এসব বিনিয়োগকারীর কাছ থেকে সংগ্রহ করতে পারবে দেড় শ’ কোটি টাকা। কেনার জন্য ১২২টি প্রতিষ্ঠান নিলামে অংশ নিয়েছে। এদের মধ্যে ১১০টি প্রতিষ্ঠান সর্বোচ্চ ৮৫ টাকা ২০ পয়সা দরে শেয়ার কেনার প্রস্তাব করেছে।

সোমবার বেলা সাড়ে ৩টায় একমি ল্যাবরেটরিজের শেয়ারের বিক্রির জন্য নিলাম শুরু হয়েছে। এটি বুধবার বেলা সাড়ে ৩টা পর্যন্ত চলে। বধি অনুসারে, নিলামে অংশগ্রহণকারী প্রতিষ্ঠান শেয়ারের নির্দেশক মূল্য থেকে সর্বোচ্চ ২০ শতাংশ বেশি বা ২০ শতাংশ কম পর্যন্ত দর প্রস্তাব করতে পারবে। একমি ল্যাবরেটরিজের শেয়ারের নির্দেশক মূল্য ছিল ৭১ টাকা। এ হিসেবে এর সর্বোচ্চ গ্রহণযোগ্য দর দাঁড়ায় ৮৫ টাকা ২০ পয়সা। আর সর্বনিম্ন দর হয় ৫৬ টাকা ৮০ পয়সা। মঙ্গলবার রাত পর্যন্ত সর্বোচ্চ দরেই সবচেয়ে বেশি শেয়ার কেনার প্রস্তাব ছিল। একমির আইপিওতে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের জন্য দুই কোটি শেয়ার সংরক্ষিত আছে। এর মধ্যে সর্বোচ্চ দরে পাঁচ কোটি ৫৯ লাখ শেয়ার কেনার প্রস্তাব জমা পড়েছে, যা সংরক্ষিত শেয়ারের ২৭৯ দশমিক ৭৭ শতাংশ। উল্লেখ্য, যে দামে প্রতিষ্ঠানগুলোর কাছে শেয়ার বিক্রি শেষ হবে সেই দামে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে শেয়ার বিক্রির প্রস্তাব করেছে কোম্পানিটি।

স্টকমার্কেটবিডি.কম/এমএ/এলকে

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের রাজস্ব আদায় বেড়েছে

taxস্টকমার্কেট ডেস্ক :

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের আগের তুলনায় লেনদেনের গতি বাড়ছে। যার কারণে সেখান থেকে রাজস্ব আয়ও বেড়েছে। গত বছরের ডিসেম্বরের মাসের তুলনায় চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) থেকে সরকারের রাজস্ব আদায় বেড়েছে ৪ কোটি ৪৭ লাখ ৫৪ হাজার ৭৯১ টাকা বা ৪০.৪৪ শতাংশ। ডিএসই থেকে পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

সূত্রমতে, জানুয়ারি মাসে ডিএসই থেকে মোট রাজস্ব আদায় হয়েছে ১৫ কোটি ৫৪ লাখ ১৫ হাজার টাকা। এর আগে মাসে অর্থাৎ ডিসেম্বর’১৫ মাসে রাজস্ব আদায়ের পরিমাণ ছিল ১১ কোটি ৬ লাখ ৬০ হাজার ২০৯ টাকা। অর্থাৎ এক মাসের ব্যবধানে রাজস্ব আদায় বেড়েছে ৪ কোটি ৪৭ লাখ ৫৪ হাজার ৭৯১ টাকা অর্থাৎ ৪০.৪৪ শতাংশ।

জানা যায়, জানুয়ারিতে ডিএসইর সদস্য প্রতিষ্ঠানগুলো থেকে ১১ কোটি ৩৪ লাখ ৯৬ হাজার টাকা রাজস্ব আদায় হয়েছে। এর আগে ডিসেম্বর মাসে রাজস্ব আদায় হয়েছিল ৯ কোটি ১৬ লাখ ১১ হাজার টাকা। সেই তুলনায় জানুয়ারিতে সদস্য প্রতিষ্ঠান থেকে রাজস্ব আদায় বেড়েছে ২ কোটি ১৮ লাখ ৮৪ হাজার টাকা বা ২৩.৮০ শতাংশ। এদিকে, উদ্যোক্তা পরিচালক ও প্লেসমেন্ট শেয়ারধারীদের কাছ থেকে জানুয়ারিতে ৪ কোটি ১৯ লাখ ১৮ হাজার টাকা রাজস্ব আদায় হয়েছে। এর আগের মাসে ডিএসই উদ্যোক্তা পরিচালক ও প্লেসমেন্ট শেয়ারধারীদের কাছ থেকে রাজস্ব আদায় হয়েছিল ১ কোটি ৯০ লাখ ৪৮ হাজার। সে হিসেবে এ খাতে রাজস্ব আদায় বেড়েছে ২ কোটি ২৮ লাখ ৭০ হাজার টাকা বা ১২০ শতাংশ।

উল্লেখ্য, আয়কর অধ্যাদেশ ১৯৮৪, ধারা ৫৩ এর আওতায় ডিএসই জানুয়ারি মাসে সদস্য ব্রোকারেজ হাউসের কাছ থেকে এই রাজস্ব আদায় করেছে।

স্টকমার্কেটবিডি.কম/এমএ/এলকে

আরএকে সিরামকসের ১০% নগদ লভ্যাংশ

RAK-CERAMIKস্টকমার্কেট ডেস্ক :

শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত সিরামিকস খাতের কোম্পানি আরএকে সিরামকস লিমিটেড শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ২৫ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

গতকাল বুধবার অনুষ্ঠিত কোম্পানির বোর্ড সভায় লভ্যাংশের এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

কোম্পানির ৩১ ডিসেম্বর ২০১৫ সমাপ্ত হিসাব বছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে এ লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে।

কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৩.২৫ টাকা। শেয়ার প্রতি প্রকৃত সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ১৭.৯৩ টাকা।

আগামী ১৩ এপ্রিল কোম্পানির বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) অনুষ্ঠিত হবে। আর রেকর্ড তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছে আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি।

স্টকমার্কেটবিডি.কম/এমএ/এলকে