ব্যাংকগুলোকে অতিরিক্ত ব্যয় না করার নির্দেশ দিল কেন্দ্রীয় ব্যাংক

bbনিজস্ব প্রতিবেদক :

দেশের সকল ব্যাংকগুলোকে আড়ম্বরপূর্ণ সাজসজ্জা ও বিশেষ শ্রেণির গ্রাহকদের উচ্চমানের সেবা প্রদানের পেছনে অতিরিক্ত মাত্রায় ব্যয় না করার নির্দেশ দিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। সম্প্রতি এ সংক্রান্ত একটি সার্কুলার জারি হয়েছে।

এতে বাংলাদেশ ব্যাংক বলেছে, কোনও কোনও ব্যাংক নতুন শাখা স্থাপন, স্থানান্তর বা স্থাপনা ভাড়া করে আড়ম্বরপূর্ণ সাজসজ্জায় উচ্চ ব্যয় করছে। আবার, কোনও কোনও ব্যাংক উচ্চ ব্যয় নির্বাহের মাধ্যমে বিশেষ শ্রেণির গ্রাহকদের উচ্চমানের সেবা প্রদানের মাধ্যমে সেবায় বৈষম্য তৈরি করছে।

“এভাবে ব্যয় বৃদ্ধি পাওয়ার কারণে ব্যাংক-কোম্পানির ব্যবস্থাপনার উপর আমানতকারী ও মূলধন যোগানদাতাদের আস্থা হ্রাস পেতে পারে।”

ব্যাংক কোম্পানি আইন ১৯৯১ (সংশোধিত ২০১৩) অনুযায়ী, বাংলাদেশ ব্যাংকের অনুমতি ছাড়া দেশের কোথাও নতুন ব্যবসা কেন্দ্র চালু বা বিদ্যমান ব্যবসা কেন্দ্র স্থানান্তর করা যাবে না।

২০১২ সালে জারি করা এক সার্কুলারে ব্যবসা কেন্দ্র স্থাপন, স্থানান্তর, স্থাপনা ভাড়া বা ইজারা গ্রহন ও নবায়নের জন্য বাংলাদেশ ব্যাংকে আবেদন দাখিলের পদ্ধতি বর্ণনা করা আছে।

ব্যাংক ব্যবস্থাপনার উপর আমানতকারী ও মূলধন যোগানদাতাদের আস্থা বজায় রাখার জন্য ২০১৪ সালে অপর এক সার্কুলারে নতুন শাখা স্থাপনে বা স্থানান্তরে এবং বিভিন্ন খাতে ব্যয় সাশ্রয়ী হওয়ার জন্য নির্দেশনা দেওয়া আছে।

সব ব্যাংকের প্রধান নির্বাহীদের কাছে পাঠানো ‘ব্যাংক কোম্পানির ব্যবসা কেন্দ্র স্থাপন, স্থানান্তর এবং আড়ম্বরপূর্ণ সাজসজ্জা প্রসঙ্গে’ সোমবারেরওই সাকুলারে বলা হয়েছে, “এমতাবস্থায় ব্যাংক কোম্পানি আইন এবং আগে জারি করা সার্কুলার দুটি যথাযথভাবে পরিপালনে সচেষ্ট থাকার জন্য পরামর্শ দেওয়া যাচ্ছে।”

স্টকমার্কেটবিডি.কম/এমএ/এ

এশিয়া প্যাসিফিকের শেয়ার ক্রয় সম্পন্ন

Asia-Pac-smbdস্টকমার্কেট ডেস্ক:

শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত বীমা খাতের কোম্পানি এশিয়া প্যাসিফিক ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেডের একজন উদ্দোক্তা ৫ লাখ শেয়ার ক্রয় সম্পন্ন করেছেন। চট্টগ্রাম স্টক একচেঞ্জ (সিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

মোহাম্মদ শাহজাহান মিয়া নামে বীমার এ উদ্দ্যোক্তা প্রতিষ্ঠানটির এই ৫ লাখ শেয়ার ক্রয় করেন।

এই উদ্যোক্তা এসব শেয়ার বাজার দরে ক্রয় করেছেন।

তিনি এই ঘোষণার ৩০ কার্য দিনের মধ্যে উল্লেখিত পরিমাণ শেয়ার ক্রয় করেছে বলে বীমাটির পক্ষ থেকে জানানো হয়।

স্টকমার্কেটবিডি.কম/এমআর

ইসলামী ব্যাংকের ক্রেডিট রেটিং

islamiস্টকমার্কেট ডেস্ক :

শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত ব্যাংকিং খাতের কোম্পানি ইসলামী ব্যাংকের স্বল্পমেয়াদে ঋণমান ‘এএ+’ এবং দীর্ঘমেয়াদে ‘এসটি-১’। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

২০১৪ সালের ৩১ ডিসেম্বর সমাপ্ত হিসাব বছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন ও হালনাগাদ অন্যান্য আর্থিক উপাত্তের ভিত্তিতে এ সিদ্ধান্তে উপনীত হয়েছে ক্রেডিট রেটিং এজেন্সি।

এছাড়া ব্যাংকটির ৩১ মার্চ পর্যন্ত চলতি বছরের সর্বশেষ প্রান্তিকের অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন ও হালনাগাদ অন্যান্য তথ্য বিশ্লেষণ করেছে ক্রেডিট রেটিং ইনফরমেশন এন্ড সার্ভিসেস লিমিটেড (ক্রিশল)।

স্টকমার্কেটবিডি.কম/এইচ

আল আরাফাহ পরিচালকের শেয়ার গ্রহণ

al-arafaস্টকমার্কেট ডেস্ক :

শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত ব্যাংকিং খাতের কোম্পানি আল আরাফাহ ইসলামী ব্যাংক লিমিটেডের একজন পরিচালক অন্যের হাতে থাকা শেয়ার গ্রহণ করার ঘোষণা দিয়েছে। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সূত্র থেকে জানা যায়, পরিচালক মো: আনোয়ার হোসেন নামের এ পরিচালক তার ছেলে মো: আশিক হোসেনের নিকট হতে শেয়ার গ্রহণ করবেন।

তার ছেলের নিকট হতে তিনি মোট ১ কোটি ৯৮ লাখ ৮৯ হাজার ৭০২ টি শেয়ার শেয়ার গ্রহণ করবেন।

ডিএসই জানায়, তারা ঘোষণার ৩০ কার্যদিবসের মধ্যে উপহার স্বরুপ এই হাতবদল প্রক্রিয়া সম্পন্ন করবেন।

স্টকমার্কেটবিডি.কম/এমএ

সূচকের পতন হলেও লেনদেন স্থিতিশীল

dseনিজস্ব প্রতিবেদক :

দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) দিনের শেষে লেনদেন আগের দিনের অবস্থানে স্থিতিশীল ছিল। তবে সেখানে মূল্য সূচকের পতন হয়েছে। আর চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জেও (সিএসই) লেনদেন ও সূচকের আগের দিনের চেয়েছে কমেছে। ডিএসই ও সিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

মঙ্গলবার দিনভর ডিএসইতে ৩২৮ কোটি ৪২ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। যা আগের দিন সোমবার ছিল ৩২৮ কোটি ৩৪ লাখ টাকা। এ হিসাবে দিনের লেনদেন প্রায় আগের দিনের অবস্থানে স্থিতিশীল রয়েছে।

এদিন ডিএসইতে ব্রড ইনডেক্স আগের দিনের চেয়ে ৫.৮৯ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ৪৩৬৩ পয়েন্টে। আর ডিএসই শরিয়াহ সূচক ০.৬১ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ১০৭৫ পয়েন্টে এবং ডিএসই-৩০ সূচক ২.৭৮ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ১৭১০ পয়েন্টে।

এদিন দিনভর লেনদেন হওয়া ৩১৮টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ১৩৮ টির, কমেছে ১২৩ টির আর অপরিবর্তিত রয়েছে ৫৭ টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের শেয়ার দর।

এদিন ডিএসইতে টাকার অঙ্কে লেনদেনে শীর্ষ কোম্পানিগুলো হচ্ছে- ন্যাশনাল ফিডস, একমি ল্যাব., অলিম্পিক এক্সেসরিজ, বিবিএস, বিডি থাই, ইবনে সিনা, ডরিন পাওয়ার, আমান ফিডস, স্কয়ার ফার্মা ও হামিদ ফেব্রিকস।

এদিকে মঙ্গলবার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) ১৯ কোটি ৯৪ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। আগের দিন সোমবার সেখানে ১৯ কোটি ১২ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে।

এদিন সিএসই সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ২০ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ১৩ হাজার ৪১৬ পয়েন্টে। সিএসইতে মোট লেনদেন হয়েছে ২৪৪ টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের শেয়ার। এর মধ্যে দর বেড়েছে ১০৪টির, কমেছে ১০৩ টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৩৭ টির।

স্টকমার্কেটবিডি.কম/এম/এলকে

বিএসইসির অনুমোদন স্বাপেক্ষে আইএফআইসির রাইট

ific-smbdস্টকমার্কেট ডেস্ক :

শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত ব্যাংকিং খাতের কোম্পানি ইন্টারন্যাশনাল ফাইন্যান্স এন্ড ইনভেষ্টমেন্ট লিমিটেডের (আইএফআইসি) ব্যাংক পরিশোধিত মূলধন বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে ব্যাংকটির পরিচালনা পর্ষদ। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সূত্র জানায়, মূলধন বাড়াতে ব্যাংকটি রাইট শেয়ার ইস্যু করবে। প্রাথমিকভাবে ব্যাংকটি ১:১ হারে রাইট শেয়ার ইস্যু করতে চায়। প্রতিটি শেয়ারের অভিহিত মূল্য হবে ১০ টাকা।

ব্যাংকের সর্বশেষ বার্ষিক সাধারণ সভায় (এজিএম) পরিশোধিত মূলধন বাড়ানোর সিদ্ধান্তকে অনুমোদন দেয় শেয়ারহোল্ডাররা।

বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) অনুমোদন পেলেই ব্যাংকটি রাইট শেয়ার ছাড়তে পারবে।

স্টকমার্কেটবিডি.কম/বিএ

ডিএসইর এমডি পদের জন্য ৪ জনের তালিকা

dseনিজস্ব প্রতিবেদক :

দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) নিয়োগের জন্য চারজনের সংক্ষিপ্ত তালিকা করেছে। ১২ জনের সাক্ষাৎ শেষে চারজনকে সংক্ষিপ্ত তালিকায় রাখা হয়েছে। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। চারজনের সংক্ষিপ্ত তালিকায় রয়েছেন, কাজী আবু মোহাম্মদ মাজেদুর রহমান, আবুল এহতেশাম আবদুল মুহাইমেন, মাশিউল হক চৌধুরী ও আক্তার হোসেন সান্নামাত।

সাক্ষাৎকারের জন্য ১৩ জনকে নির্বাচন করা হয়েছিল। সমপ্রতি চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ (সিএসই) লিমিটেডের এমডি হিসেবে যোগদান করায় এম সাইফুর রহমান মজুমদার সাক্ষাৎকারে অংশগ্রহণ করেননি।

জানা গেছে, চলতি সপ্তাহে এমডি নিয়োগের বিষয়টি চূড়ান্ত হতে পারে। চূড়ান্ত করার আগে তালিকার চারজনের সঙ্গে বেতনসহ আনুষঙ্গিক বিষয়াদি নিয়ে আলোচনা করা হবে। এরপর এদের মধ্যে থেকে একজনকে চূড়ান্ত করে পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) কাছে তার নাম সুপারিশ করবে ডিএসই। আর বিএসইসির অনুমোদন পেলে চূড়ান্ত নিয়োগ দেয়া হবে।

এর আগে এমডির খোঁজে দুই দফায় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে ডিএসই। প্রথম দফায় আশানুরূপ যোগ্য প্রার্থীর আবেদন জমা না পড়ায় দ্বিতীয় দফায় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়।

উল্লেখ্য, মেয়াদ শেষে স্বপন কুমার বালা পদ ছেড়ে দেয়ায় চলতি বছরের ১৩ এপ্রিল এমডি পদটি খালি হয়। আর এই পদের জন্য এপ্রিল মাসের শুরুতে প্রথম দফায় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে ডিএসই। বিজ্ঞপ্তিতে আগ্রহী প্রার্থীদের ১৭ এপ্রিলের মধ্যে ডিএসই চেয়ারম্যান বরাবর আবেদন করতে বলা হয়। দ্বিতীয় ধাপের বিজ্ঞপ্তিতে আগ্রহী প্রার্থীদের ১৫ মের মধ্যে আবেদন করতে বলা হয়।

এদিকে ডিএসইর এমডি পদে নিয়োগ লাভের জন্য শিক্ষাগত যোগ্যতা ও পেশাদারি দক্ষতার ২টি শর্তের কথা বলা হয়। এর মধ্যে যে কোনো একটি শর্ত পূরণ করলেই হবে। প্রথম শর্ত হিসেবে বলা হয়, ব্যবসায় ব্যবস্থাপনায় কমপক্ষে ১০ বছরের অভিজ্ঞতাসহ অর্থনীতি, ব্যবসায়, পরিসংখ্যান, গণিত অথবা আইন বিষয়ে স্নাতক থাকতে হবে। ২য় শর্তে বলা হয়, নূ্যনতম ১০ বছরের পেশাদারিত্বের অভিজ্ঞতাসহ সিএফএ, সিএ, সিএমএ, সিএস, সিপিএ ইত্যাদি পেশাদারি পদবি থাকতে হবে। তবে শেয়ারবাজার বা সম্পর্কিত ক্ষেত্রে আন্তর্জাতিক মানের দক্ষতাসম্পন্ন ব্যক্তির ক্ষেত্রে নিয়োগ লাভে প্রথম দুটি শর্ত ডিএসইর পরিচালনা পর্ষদের সম্মতিতে শিথিল করা যেতে পারে বলে বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়।

স্টকমার্কেটবিডি.কম/এম

ব্যক্তিশ্রেণীর বিনিয়োগকারীদের নিয়ে আবারো কঠোর রাজস্ব বোর্ড

NBRনিজস্ব প্রতিবেদক :

আগের আইনে আয়ের বিপরীতে রেয়াত সুবিধা বৃদ্ধি করে রাজস্ব হারিয়েছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)। এজন্য ব্যক্তিশ্রেণীর বিনিয়োগকারীদের কর রেয়াত সুবিধা কমিয়ে কঠোর অবস্থানে যাচ্ছে এনবিআর। সম্প্রতি বিনিয়োগের নির্ধারিত সীমা কমানোর পাশাপাশি রেয়াতের হারও কমানোর প্রস্তাব করেছে প্রতিষ্ঠানটি। এনবিআর এ তথ্য সূত্রে জানা গেছে।

আগামী অর্থবছর থেকে শেয়ারবাজারসহ সব খাতে ব্যক্তিশ্রেণীর বিনিয়োগকারীদের জন্য কর রেয়াত সুবিধা কমছে। করযোগ্য আয়ের বিনিয়োগসীমা ২০ শতাংশ ও কর রেয়াত সুবিধা বিনিয়োগভেদে ১০ থেকে ১৫ শতাংশ পর্যন্ত নির্ধারণ করা হয়েছে, যা ১ জুলাই থেকে কার্যকর হবে।

জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) সূত্রে জানা গেছে, বর্তমানে করযোগ্য ব্যক্তি তার আয়ের ৩০ শতাংশ পর্যন্ত (সর্বোচ্চ দেড় কোটি টাকা) এনবিআর অনুমোদিত যেকোনো খাতে বিনিয়োগে ১৫ শতাংশ হারে কর রেয়াত সুবিধা পান। ২০১৩-১৪ অর্থবছর পর্যন্ত ব্যক্তির মোট আয়ের ২০ শতাংশ বিনিয়োগের বিপরীতে ১০ শতাংশ আয়কর রেয়াত মিলত। তবে এটি পরিবর্তন করে গত দুই অর্থবছর করদাতাদের বিনিয়োগের বিপরীতে সুবিধা কিছুটা বাড়ানো হয়। ফলে এ খাত থেকে প্রতি বছর এনবিআরের রাজস্ব আয় প্রায় দেড় হাজার কোটি টাকা কমে যায়।

এবার রেয়াত সুবিধা কমানোর প্রস্তাব সম্পর্কে এনবিআর বলছে, মানুষের আর্থিক সক্ষমতা বৃদ্ধি পাওয়ায় এবং রাজস্ব আহরণ বাড়ানোর লক্ষ্যে এ আইনে আবার পরিবর্তন আনার প্রস্তাব করা হয়েছে। নতুন আইন অনুযায়ী, করযোগ্য আয়ের ৩০ শতাংশ পর্যন্ত বিনিয়োগে কর রেয়াতের সুযোগ কমিয়ে ২০ শতাংশ করা হচ্ছে। অন্যদিকে এর ওপর আয়কর রেয়াত ১৫ শতাংশের পরিবর্তে ১০, ১২ ও ১৫ শতাংশ হারে তিনটি স্লাবে ভাগ করা হয়েছে।

এ বিষয়ে এনবিআরের একজন জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা বলেন, বিনিয়োগ উত্সাহিত করার জন্য দুই বছর আগে রেয়াত সুবিধা বাড়ানো হলেও কার্যত তা বিনিয়োগ বাড়ায়নি। বরং এ কারণে গত দুই বছর সরকারের রাজস্ব কমেছে। সর্বশেষ অর্থবছরে সরকার এখান থেকে ১ হাজার কোটি টাকার বেশি রাজস্ব কম পেয়েছে। এ বিষয়টি মাথায় রেখেই আইনটি সংশোধনের প্রস্তাব করা হয়েছে। বিনিয়োগসীমা ও কর রেয়াত সুবিধা কমানোর কারণে কম আয়ের করদাতাদের তেমন সমস্যা হবে না। কারণ নতুন নিয়মে তিনটি স্লাব থাকায় সব শ্রেণীর বিনিয়োগকারীদের সুরক্ষা দিয়েই রাজস্ব আহরণ বাড়ানো যাবে।

নতুন আইন অনুযায়ী, একজন করদাতা ১০ লাখ টাকা পর্যন্ত আয়ের বিপরীতে ২০ শতাংশ হারে তথা ২ লাখ টাকা পর্যন্ত বিনিয়োগে ১৫ শতাংশ কর রেয়াত সুবিধা পাবেন। অর্থাত্ ২ লাখ টাকা পর্যন্ত বিনিয়োগ করলে তিনি ৩০ হাজার টাকা কর রেয়াত সুবিধা পাবেন। আগের আইনে একজন করদাতা ১০ লাখ টাকা বিনিয়োগে ৩০ শতাংশ রেয়াত সুবিধার আওতায় ৩ লাখ টাকা বিনিয়োগ করে ৪৫ হাজার টাকা রেয়াত পেতেন।

স্টকমার্কেটবিডি.কম/এম