বিএসআরএম লিমিটেড ও স্টিলসের ইপিএস প্রকাশ

bsrmনিজস্ব প্রতিবেদক :

শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত প্রকৌশল খাতের কোম্পানি বিএসআরএম লিমিটেড ও বিএসআরএম স্টিলসের শেয়ার প্রতি আয় বা ইপিএস প্রকাশ করা হয়েছে। কোম্পানি সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

আজ শনিবার কোম্পানিগুলোর (জুলাই-সেপ্টেম্বর,১৬) প্রথম প্রান্তিকের অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে এই ইপিএস প্রকাশ করা হয়।

বিএসআরএম লিমিটেডের প্রথম প্রন্তিকের ইপিএস এসেছে ৭৪ পয়সা। গত বছরের একই সময়ে যা ছিল ৭৮ পয়সা।

এ সময়ে কোম্পানির শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভি) হয়েছে ৫৩ টাকা ৬০ পয়সা। আগের বছর একই সময়ে যা ছিল ৫২ টাকা ৮৪ পয়সা।

আর বিএসআরএম স্টিল লিমিটেডের শেয়ার প্রতি আয় বা ইপিএস হয়েছে ১ টাকা ৮৮ পয়সা। গত বছরের একই সময়ে যা ছিল ১ টাকা ৮৩ পয়সা।

একই সময়ে কোম্পানিটির সমন্বিত ইপিএস হয়েছে ২ টাকা ২১ পয়সা। গত বছরের একই সময়ে যা ছিল ১ টাকা ৭১ পয়সা।

এ সময়ে কোম্পানির শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভি) হয়েছে ৩২ টাকা ৯৩ পয়সা। আগের বছরের একই সময়ে এই এনএভি ছিল ৩০ টাকা ৭২ পয়সা।

স্টকমার্কেটবিডি.কম/এমএ/

ঋনে কাবু সিনো বাংলা ইন্ডাস্ট্রিজ : কমছে ইপিএস

sinoনিজস্ব প্রতিবেদক :

বড় ধরনের ঋণের বোঝা নিয়ে ব্যবসা করছে প্রকৌশল তালিকাভুক্ত সিনো বাংলা ইন্ডাস্ট্রিজ লিমেটেড। এই ঋণই কোম্পানির মুনাফা অর্জনকে বড় বাধাগ্রস্থ করে তুলেছে। সুদবাবদ আয়ের একটি বড় অংশ ব্যয় করছে কোম্পানি। ফলে কমে আসছে মুনাফা ও ইপিএস। চলতি বছরের প্রথম প্রান্তিকের শেয়ার প্রতি আয় বা ইপিএস গত ২ বছরের মধ্যে সর্বনিম্নে চলে এসেছে। ইতোমধ্যে শেয়ারহোল্ডারদের লভ্যাংশ না দেওয়ায় শাস্তি পেতে হয়েছে কোম্পানিটি।

চলতি প্রথম প্রান্তিকে সিনোবাংলার শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ২০ পয়সা। যা আগের বছর ২০১৫ সালে একই সময়ে ইপিএস ছিল ৩৩ পয়সা। আর ২০১৪ সালে এই আয় ছিল ২৩ পয়সা। এহিসাবে গত দুই বছরের মধ্যে সর্বনিম্ন অবস্থানে কোম্পানিটির আলোচিত প্রান্তিকের ইপিএস।

কোম্পানিটি আয়ের একটি বড় অংশ ঋণের সুদ বাবদ ব্যয় করে আসছে। এজন্য মুনাফা ও আয় অর্জনের প্রবৃদ্ধি ধরে রাখতে পারছে না। ৩১ অক্টোবর ২০১৫ সাল পর্যন্ত কোম্পানির স্বল্প মেয়াদি ঋণের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৯ কোটি ৯ লাখ। আর এসময় দীর্ঘ মেয়াদি ঋণের পরিমাণ ৫ কোটি ৭২ লাখ টাকা।

মুনাফা ভালো না হওয়ায় শেয়ার হোল্ডারদের লভ্যাংশ দিতে ব্যর্থ হয় কোম্পানিটি। এর ফলে সিনো বাংলাকে জেড ক্যাটাগরিতে নামিয়ে দেয় কর্তৃপক্ষ। যা এখনো বলবৎ রয়েছে।

স্টকমার্কেটবিডি.কম/সি

চার কোম্পানির বোর্ড সভা শনিবার

boardস্টকমার্কেট ডেস্ক :

শেয়ারবাজারের তালিকাভুক্ত ৪টি কোম্পানি প্রথম প্রান্তিকের বোর্ড সভা আজ অনুষ্ঠিত হবে। কোম্পানিগুলো হচ্ছে- সিনোবাংলা ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড, ন্যাশনাল পলিমার লিমিটেড, বিএসআরএম স্টিল লিমিটেড ও বিএসআরএম লিমিটেড। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

কোম্পানিগুলোর পর্ষদ সভায় ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৬ সমাপ্ত সময়ের (১ম প্রান্তিক) অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনার করা হবে।

সিনোবাংলা ইন্ডাস্ট্রিজ :

সিনোবাংলা ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের পর্ষদ সভা আজ সকাল ১১টায় অনুষ্ঠিত হবে। সভায় কোম্পানির ১ম প্রান্তিকের অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনার পাশাপাশি প্রকাশ করা হবে।

ন্যাশনাল পলিমার :

ন্যাশনাল পলিমার লিমিটেডের সভা বিকেল ৩ টায় অনুষ্ঠিত হবে। সভায় কোম্পানির ১ম প্রান্তিকের অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনার পাশাপাশি প্রকাশ করা হবে।

বিএসআরএম স্টিল লিমিটেড :

বিএসআরএম স্টিল লিমিটেডের সভা বিকেল ৪টায় অনুষ্ঠিত হবে। সভায় কোম্পানির ১ম প্রান্তিকের অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনার পাশাপাশি প্রকাশ করা হবে।

বিএসআরএম লিমিটেড :

বিএসআরএম লিমিটেডের সভা বিকেল ৫টায় অনুষ্ঠিত হবে। সভায় কোম্পানির ১ম প্রান্তিকের অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনার পাশাপাশি প্রকাশ করা হবে।

স্টকমার্কেটবিডি.কম/এসআর/এ

সপ্তাহ জুড়ে ডিএসইতে তিন হাজার কোটি টাকার লেনদেন

dseনিজস্ব প্রতিবেদক :

গত সপ্তাহ জুড়ে ঢাকা স্টক একচেঞ্জে (ডিএসই) লেনদেন হয়েছে প্রায় তিন হাজার কোটি টাকা। যা গত সপ্তাহের চেয়ে ৩৪ দশমিক ৯৫ শতাংশ বেশি। তার সাথে বেড়েছে সূচকও। এছাড়া বোর্ড সভা হয়েছে বেশ কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, শেয়ারবাজারে এখন নতুন বিনিয়োগ আসছে। এজন্য ডিএসইতে বাড়ছে লেনদেন। লেনদেন ও সূচকের চাঙ্গার ফলস্বরুপ শেয়ারবাজারে নতুন বিনিয়োগকারীদের আনাগোনা বেড়েছে।

ঢাকা স্টক একচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে জানা যায়, সর্বশেষ সপ্তাহ জুড়ে লেনদেন হয়েছিল ২ হাজার ৯৪৭ কোটি ২২ লাখ টাকার শেয়ার। এর আগের সপ্তাহে ছিলো ২ হাজার ১৮৩ কোটি ৯২ লাখ টাকার শেয়ার।

সমাপ্ত সপ্তাহে এ ক্যাটাগরির কোম্পানির শেয়ার লেনদেন হয়েছে ৮৩ দশমিক ২৩ শতাংশ। বি ক্যাটাগরির কোম্পানির লেনদেন হয়েছে দশমিক ৯৫ শতাংশ। এন ক্যাটাগরির কোম্পানির শেয়ার লেনদেন হয়েছে ৮ দশমিক ১৪ শতাংশ। জেড ক্যাটাগরির লেনদেন হয়েছে ২ দশমিক ৬৮ শতাংশ।

ডিএসইএক্স সূচক বেড়েছে দশমিক ০৯ শতাংশ বা ৪ দশমিক ২৬ পয়েন্ট। সপ্তাহের ব্যবধানে ডিএসই৩০ সূচক বেড়েছে দশমিক ০২ শতাংশ বা দশমিক ৩৯ পয়েন্ট। অপরদিকে, শরীয়াহ বা ডিএসইএস সূচক বেড়েছে দশমিক ৪০ শতাংশ বা ৪ দশমিক ৪২ পয়েন্টে।

এছাড়া সপ্তাহজুড়ে ডিএসইতে তালিকাভুক্ত মোট ৩৩০টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের শেয়ার লেনদেন হয়েছে। এর মধ্যে দর বেড়েছে ১৩৪টি কোম্পানির। আর দর কমেছে ১৭৩টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২১টির। আর লেনদেন হয়নি ২টি কোম্পানির শেয়ার।

অপরদিকে চট্টগ্রাম স্টক এক্সেচঞ্জে (সিএসই) লেনদেন হয়েছে ১৭৩ কোটি ১৪ লাখ টাকার শেয়ার। তবে সার্বিক সূচক বেড়েছে দশমিক ২৮ শতাংশ।

সপ্তাহজুড়ে সিএসইতে তালিকাভুক্ত মোট ২৭৯টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের শেয়ার লেনদেন হয়েছে। এর মধ্যে দর বেড়েছে ১০৫টি কোম্পানির। আর দর কমেছে ১৫৪টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২০টির।

স্টকমার্কেটবিডি.কম/এমএ

ডিএসইতে পিই রেশিও ১৫ দশমিক ১৪ পয়েন্ট

peস্টকমার্কেট ডেস্ক :

গত সপ্তাহে ব্যবধানে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) সার্বিক মূল্য আয় অনুপাত (পিই রেশিও) অপরিবর্তিত রয়েছে। অর্থাৎ আগের সপ্তাহের মতোই ডিএসইতে পিই রেশিও ১৫ দশমিক ১৪ পয়েন্টে অবস্থান করছে। ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

বিশ্লেষকদের মতে, পিই রেশিও যতদিন ১৫ এর ঘরে থাকে ততদিন বিনিয়োগ নিরাপদ থাকে।

সপ্তাহ শেষে খাতভিত্তিক ট্রেইলিং পিই রেশিও বিশ্লেষণে দেখা যায়, ব্যাংক খাতের পিই রেশিও অবস্থান করছে ৭.১ পয়েন্টে, সিমেন্ট খাতের ২৭.৪ পয়েন্টে, সিরামিক খাতের ১৯.১ পয়েন্টে, প্রকৌশল খাতের ১৭.৬ পয়েন্টে, খাদ্য ও আনুষাঙ্গিক খাতের ২৭.৯ পয়েন্টে, জ্বালানি ও বিদ্যুৎ খাতে ১৩.৬ পয়েন্টে, সাধারণ বিমা খাতে ১১.৫ পয়েন্টে, তথ্য ও প্রযুক্তি খাতে ৩১.৪ পয়েন্টে।

এছাড়া পাট খাতের পিই রেশিও মাইনাস ২৬.৭ পয়েন্টে, বিবিধ খাতের ২৮ পয়েন্টে, এনবিএফআই খাতে ১৮.৯ পয়েন্ট, কাগজ খাতের ৭২৯.৯ পয়েন্টে, ওষুধ ও রসায়ন খাতের ১৯.১ পয়েন্টে, সেবা ও আবাসন খাতের ২৩.৪ পয়েন্টে, চামড়া খাতের ২২.৬ পয়েন্টে, টেলিযোগাযোগ খাতে ১৭.৮ পয়েন্টে, বস্ত্র খাতের ১২.৫ পয়েন্টে এবং ভ্রমণ ও অবকাশ খাতের ১৬.৭ পয়েন্টে অবস্থান করছে।

স্টকমার্কেটবিডি.কম/এমএ

বিনিয়োগকারীদের হতাশ করলো বঙ্গজ লিমিটেড এবং তাল্লু স্পিনিং

no-dividenedনিজস্ব প্রতিবেদক :

শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত বঙ্গজ লিমিটেড এবং তাল্লু স্পিনিং লিমিটেডের পরিচালনা পর্ষদ বিনিয়োগকারীদের হতাশ করেছে। গত ৩০ জুন, ২০১৬ সমাপ্ত অর্থবছরের জন্য নো ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে কোম্পানিগুলো । বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত এসব কোম্পানির পরিচালনা পর্ষদের সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয় বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে। আর কোম্পানির এমন আচরণে হতাশ হয়েছেন বিনিয়োগকারীরা।

সূত্র মতে, সমাপ্ত অর্থবছরে বঙ্গজের শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ০.৩৮ টাকা, শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য হয়েছে ২২.৭৬ টাকা্ এবং শেয়ার প্রতি কার্যকরী নগদ প্রবাহের পরিমান (এনওসিএফপিএস) ০.৫০ টাকা।

কোম্পানির বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) আগামী ২৯ ডিসেম্বর সকাল সাড়ে ১১টায়, কোম্পানির ফ্যাক্টরী প্রাঙ্গনে, চুয়াডাঙ্গায় অনুষ্ঠিত হবে। আর এ সংক্রান্ত রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে আগামী ৫ ডিসেম্বর।

এদিকে, সমাপ্ত অর্থবছরে তাল্লু স্পিনিংয়ের শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ০.৬১ টাকা এব্ং শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য হয়েছে ১৪.২২ টাকা্

কোম্পানির বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) আগামী ২৯ ডিসেম্বর কোম্পানির ফ্যাক্টরী প্রাঙ্গনে, চুয়াডাঙ্গায় অনুষ্ঠিত হবে। আর এ সংক্রান্ত রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে আগামী ৫ ডিসেম্বর।

স্টকমার্কেটবিডি.কম/এমএ

চট্টগ্রামে সিএসই ৩০ সূচকে নতুন ১০ কোম্পানি

DSE_CSE-smbdনিজস্ব প্রতিবেদক :

চট্টগ্রাম স্টক এক্সেচেঞ্জে (সিএসই) সিএসই-৩০ সূচকে নতুন ১০ কোম্পানির অন্তর্ভুক্তি হয়েছে। একইসঙ্গে পুরাতন ১০ কোম্পানি এ সূচক থেকে বাদ পড়েছে। যা ২০ নভেম্বর থেকে কার্যকর হবে। সিএসই থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানা গেছে।

সিএসই-৩০ সূচকে নতুন করে যুক্ত হওয়া ১০ কোম্পানিসহ ৩০টি কোম্পানি হলো এবি ব্যাংক লিমিটেড, অ্যাডভান্স কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজ, আফতাব অটোমোবাইলস্ লিমিটেড, অ্যাপেঙ্ ফুডস্ লিমিটেড, অ্যাপেঙ্ ট্যানারি লিমিটেড, বিএসআরএম স্টিলস্ লিমিটেড, বেঙ্মিকো ফার্মাসিউটিকালস্ লিমিটেড, দি সিটি ব্যাংক লিমিটেড, কনফিডেন্স লিমিটেড, ডেল্টা ব্র্যাক হাউজিং ফিনান্স করপোরেশন, ইস্টার্ন ব্যাংক লিমিটেড, ফারইস্ট ইসলামী লাইল ইন্স্যুরেন্স, হেইডেলবার্গ সিমেন্ট বাংলাদেশ লিমিটেড, দি ইবনে সিনা ফার্মাসিউটিক্যালস্, আইডিএলসি ফাইনান্স লিমিটেড, যমুনা অয়েল কোম্পানি লিমিটেড, খুলনা পাওয়ার কোম্পানি লিমিটেড, মেঘনা পেট্রোলিয়াম লিমিটেড, নাভানা সিএনজি লিমিটেড, পদ্মা অয়েল কোম্পানি লিমিটেড, পূবালী ব্যাংক লিমিটেড, রতনপুর স্টিল রি-রোলিং মিলস্ লি., শাশা ডেনিমস্ লি., সাউথইস্ট ব্যাংক লি., স্কয়ার টেঙ্টাইলস্ লিমিটেড, স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস্ লিমিটেড, তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিউশন অ্যান্ড ডিসট্রিবিউশন কো. লি., ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংক লি., ইউনিক হোটেল অ্যান্ড রিসোর্টস্ লিমিটেড এবং উত্তরা ব্যাংক লিমিটেড।

স্টকমার্কেটবিডি.কম/এমএ