ব্যাংকগুলো আইন অনুসরণ করলে জঙ্গি অর্থায়ন হ্রাস পাবে : দুদক চেয়ারম্যান

dudukনিজস্ব প্রতিবেদক :

দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ বলেছেন, ব্যাংকগুলো ব্যাংকিং ক্ষেত্রে বিদ্যমান আইন ও বিধি-বিধান অনুসরণ করে তাদের কার্যক্রম পরিচালনা করলে জঙ্গি অর্থায়নসহ মানি লন্ডারিং অবশ্যই হ্রাস পাবে।

আজ রবিবার সকালে রাজধানীর সেগুনবাগিচায় সংস্থার প্রধান কার্যালয়ে দুর্নীতি প্রতিরোধ সপ্তাহ-২০১৭-এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। ‘দুর্নীতি হলে শেষ—নিজে বাঁচব, বাঁচবে দেশ’—এ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে আজ থেকে শুরু হয়েছে দুর্নীতি প্রতিরোধ সপ্তাহ।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে দুদক চেয়ারম্যান বলেন, ব্যাংকগুলো ব্যাংকিং ক্ষেত্রে বিদ্যমান আইন ও বিধি-বিধান অনুসরণ করে তাদের কার্যক্রম পরিচালনা করলে জঙ্গি অর্থায়নসহ মানি লন্ডারিং অবশ্যই হ্রাস পাবে। আমরা পদ্ধতিগত পরিবর্তনের চেষ্টা করছি, যাতে দুর্নীতি-অনিয়মের ফাঁক-ফোকর বন্ধ করা যায়।’

আরেক প্রশ্নের জবাবে দুদক চেয়ারম্যান বলেন, ‘ক্ষমতা কিংবা বিত্ত-বৈভবের জোরে কেউ ছাড় পাবেন, সে সংস্কৃতি ইতিমধ্যেই ভেঙে দিয়েছি। আমরা কেউ-ই আইনের ঊর্ধ্বে নই। দুর্নীতি করলে কেউ-ই ছাড় পাবেন না কিংবা ছাড় দেওয়া হবে না।’

দুদক চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ বলেন, দুর্নীতিই জঙ্গিবাদসহ অনেক অপরাধের জন্ম দেয়। সে জন্য নতুন প্রজন্মকে দুর্নীতিমুক্ত পরিবেশে সুশিক্ষিত করে তাদের মূল্যবোধ জাগিয়ে তুলতে পারলে জঙ্গিবাদসহ অনেক অপরাধ সহজেই নির্মূল করা যাবে।

বেসিক ব্যাংক দুর্নীতি মামলার তদন্তসংক্রান্ত এক প্রশ্নের জবাবে ইকবাল মাহমুদ বলেন, ‘প্রতিটি মামলাই অত্যন্ত জটিল। দুর্নীতির এই অর্থ ধারাবাহিকভাবে লেয়ারিং হয়েছে। তাই আমাদের গভীরভাবে প্রতিটি লেয়ারে সম্পূর্ণ এবং বিশ্বাসযোগ্য তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ করে তদন্ত করতে হচ্ছে। আমরা এমনভাবে তদন্ত শেষ করতে চাই, যাতে প্রকৃত অপরাধীরা শাস্তি পায়। ব্যক্তি আমাদের কাছে মুখ্য বিষয় নয়।’

হুন্ডির মাধ্যমে অর্থ পাচার সম্পর্কে তিনি বলেন, এটা প্রতিরোধ করতে হলে বাংলাদেশ ব্যাংক ও জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সঙ্গে যৌথভাবে কমিশনকে কাজ করার ক্ষেত্র সৃষ্টি করতে হবে। তিনি বলেন, ‘আমরা সম্মিলিতভাবে এ বিষয়ে কঠোর পদক্ষেপ নেব।’

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে দুদকের দুই কমিশনার নাসিরউদ্দীন আহেমদ ও এ এফ এম আমিনুল ইসলাম, সচিব আবু মো. মোস্তফা কামাল, মহাপরিচালক শামসুল আরেফিন, আসাদুজ্জামান, ফরিদ আহমদ ভূঁইয়া, মঈদুল ইসলাম, আতিকুর রহমান খানসহ কমিশনের সর্বস্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন।

পরে দুদক মিডিয়া সেন্টারে ফিতা কেটে কার্টুন ও পোস্টার প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন ইকবাল মাহমুদ। কার্টুন ও পোস্টার প্রদর্শনী ২৬ মার্চ থেকে আগামী ১ এপ্রিল সকাল নয়টা থেকে বিকেল পাঁচটা পর্যন্ত সর্বসাধারণের জন্য উন্মুক্ত থাকবে। দুর্নীতিবিরোধী ১২২টি ব্যঙ্গাত্মক কার্টুন ও পোস্টার প্রদর্শন করা হচ্ছে।

স্টকমার্কেটবিডি.কম/এমএ

ভারতে মার্জার করবে ভোডাফোন-আইডিয়া

vodaস্টকমার্কেট ডেস্ক :

ভারতের দুটি বড় মুঠোফোন অপারেটর প্রতিষ্ঠান ভোডাফোন ও আইডিয়া মার্জার বা একীভূত হতে যাচ্ছে। এক প্রতিষ্ঠানে পরিণত হলে তারা ভারতী এয়ারটেলকে হটিয়ে দেশটির সবচেয়ে বড় মুঠোফোন অপারেটরে পরিণত হবে এবং বিশ্বে তাদের অবস্থান হবে দ্বিতীয়।

তাদের সম্মিলিত গ্রাহকসংখ্যা দাঁড়াবে প্রায় ৩৯ কোটি ৪০ লাখ। বর্তমানে ভারতে ভোডাফোন দ্বিতীয় ও আইডিয়া তৃতীয় অবস্থানে আছে। গত সোমবার এ দুটি কোম্পানি একীভূত হওয়ার ঘোষণা দেয়।

এক কোম্পানিতে পরিণত হলে তাদের বাজার অংশীদারত্ব দাঁড়াবে ৩৫ শতাংশ। রাজস্বের পরিমাণ দাঁড়াবে প্রায় ৮০ হাজার কোটি রুপি।

টাইমস অব ইন্ডিয়া

স্টকমার্কেটবিডি.কম/এমএ

পৌনে ২ ঘন্টায় ৯ কোম্পানির এজিএম : ক্ষুব্ধ বিনিয়োগকারীরা

agmনিজস্ব প্রতিবেদক :

শুরু হয়েছে ডিসেম্বর ক্লোজিং কোম্পানিগুলোর বার্ষিক সাধারণ সভার (এজিএম) মৌসুম। আর তালিকায় রয়েছে ব্যাংক-বিমা, আর্থিক প্রতিষ্ঠান ও বহুজাতিক কোম্পানিগুলো। এসব কোম্পানি আগামী বৃহস্পতিবার পৌনে ২ ঘন্টার সময়সীমায় এজিএম করবে ব্যাংক-বিমা ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান খাতের আটটিসহ মোট কোম্পানি। একইদিনে একই সময়ে একাধিক কোম্পানির এজিএম হওয়ায় ক্ষুব্ধ সাধারণ বিনিয়োগকারীরা।

ডিএসই সূত্রে জানা গেছে, ৩১ ডিসেম্বর, ২০১৬ শেষ হওয়া অর্থবছরের এজিএম কোম্পানিগুলো হলো -সোস্যাল ইসলামী ব্যাংক, ডাচ্-বাংলা ব্যাংক, মার্কেন্টাইল ব্যাংক, লংকাবাংলা ফাইন্যান্স, প্রাইম ফাইন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট, প্রাইম ইন্স্যুরেন্স, আইডিএলসি ফাইন্যান্স ও গ্রিন ডেল্টা ইন্স্যুরেন্স।

সোস্যাল ইসলামী ব্যাংকের এজিএম আগামী বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় রাজধানীর কুড়িল বিশ্ব রোডের (পূর্বাচল এক্সপেক্স হাইওয়ে) ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরায় অনুষ্ঠিত হবে। কোম্পানিটি ৩১ ডিসেম্বর, ২০১৬ সমাপ্ত অর্থবছরের জন্য ২০ শতাংশ ক্যাশ ডিভিডেন্ড ঘোষণা দিয়েছে, যা এজিএমে শেয়ারহোল্ডাররা অনুমোদন করবেন।

ডাচ্-বাংলা ব্যাংকের এজিএম একইদিন একই সময়ে ঢাকা ক্যান্টনমেন্টের কনভেনশন হলে অনুষ্ঠিত হবে। কোম্পানিটি ৩১ ডিসেম্বর, ২০১৬ সমাপ্ত অর্থবছরের জন্য ৩০ শতাংশ ক্যাশ ডিভিডেন্ড ঘোষণা দিয়েছে, যা এজিএমে অনুমোদন করানোর কথা রয়েছে।

একইদিন বেলা ১১টায় এজিএম করবে মার্কেন্টাইল ব্যাংক। রাজধানীর বিজয় নগরে ফার হোটেল অ্যান্ড রিসোর্টে এজিএম হবে। কোম্পানিটি ৩১ ডিসেম্বর, ২০১৬ সমাপ্ত অর্থবছরের জন্য ১৫ শতাংশ ক্যাশ ও পাঁচ শতাংশ স্টকসহ মোট ২০ শতাংশ ডিভিডেন্ড ঘোষণা দিয়েছে।

আর্থিক খাতের লংকাবাংলা ফাইন্যান্সের এজিএমও বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় অনুষ্ঠিত হবে। রাজধানীর ধানমন্ডিতে মাইডাস সেন্টারে এজিএম অনুষ্ঠিত হবে তালিকাভুক্ত এ কোম্পানিটির। ‘এ’ ক্যাটাগরির এ কোম্পানিটি ৩১ ডিসেম্বর, ২০১৬ সমাপ্ত অর্থবছরের জন্য ১৫ শতাংশ ক্যাশ এবং ১৫ শতাংশ স্টকসহ মোট ৩০ শতাংশ ডিভিডেন্ড ঘোষণা দিয়েছে, যা এজিএমে অনুমোদন করার কথা রয়েছে।

এ খাতের আরেক কোম্পানি আইডিএলসি ফাইন্যান্সও একইদিন এজিএম করবে। এদিন সকাল ১০টায় রাজধানীর র‌্যাডিসন ব্ল– ঢাকা ওয়াটার গার্ডেনে অনুষ্ঠিত হবে। কোম্পানিটি ৩১ ডিসেম্বর, ২০১৬ সমাপ্ত অর্থবছরের জন্য ৩০ শতাংশ ক্যাশ ডিভিডেন্ড ঘোষণা দিয়েছে।

একইদিনের প্রথমার্ধে বার্ষিক সাধারণ সভার প্রস্তুতি নিয়েছে আর্থিক খাতের প্রাইম ফাইন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট। রাজধানীর মিরপুর-১৪-এ অবস্থিত পুলিশ স্টাফ কলেজের কনভেনশন হলে অনুষ্ঠিত হবে। কোম্পানিটি ৩১ ডিসেম্বর, ২০১৬ সমাপ্ত অর্থবছরের জন্য কোনো লভ্যাংশ ঘোষণা করেনি।

বিমা খাতের আরেক কোম্পানি প্রাইম ইন্স্যুরেন্স বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় এজিএম করবে। রাজধানীর বাংলাদেশ ইনস্টিটিউশন অব অ্যান্ডমিনিস্ট্রেশন অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট (বিআইএএম) মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হবে। কোম্পানিটি ৩১ ডিসেম্বর, ২০১৬ সমাপ্ত অর্থবছরের জন্য ১৩ শতাংশ ক্যাশ ডিভিডেন্ড ঘোষণা দিয়েছে।

গ্রিন ডেল্টা ইন্স্যুরেন্স বৃহস্পতিবার ১০টায় রাজধানীর গুলশানের স্পেকট্রা কনভেনশন সেন্টারে অনুষ্ঠিত হবে। কোম্পানিটি ৩১ ডিসেম্বর, ২০১৬ সমাপ্ত অর্থবছরের জন্য ২০ শতাংশ ক্যাশ ডিভিডেন্ড ঘোষণা দিয়েছে। বস্ত্র খাতের আরএন স্পিনিং মিলস চার বছরের এজিএম একসঙ্গে করবে। এ কোম্পানিটির এজিএমও বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত হবে। এদিন বেলা ১১টায় কুমিল্লার শালবন মাল্টিপারপাস হলে অনুষ্ঠিত হবে। আরএন স্পিনিং বিনিয়োগকারীদের জন্য ৩০ জুন, ২০১৬ সমাপ্ত অর্থবছরে ২০ শতাংশ স্টক ডিভিডেন্ড ঘোষণা করেছে। আর গত তিন বছরের (২০১২, ২০১৩ ও ২০১৪) জন্য কোনো ধরনের ডিভিডেন্ড দেয়নি কোম্পানিটি।

এছাড়াও আইনি জটিলতা কাটিয়ে ওঠায় একই দিন আরএন স্পিনিং মিলস এজিএম করবে বলে ডিএসই সূত্রে জানা গেছে। ঘোষিত ডিভিডেন্ড বিনিয়োগকারীদের সম্মতিক্রমে অনুমোদনের পাশাপাশি চার বছরের অর্থাৎ নবম, ১০ম, ১১তম ও ১২তম বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) আগামী ৩০ মার্চ সকাল সাড়ে ১০টা থেকে শুরু করে ১৫ মিনিট ব্যবধানে চারটি এজিএম শুরু হবে।

এ প্রসঙ্গে বিনিয়োগকারীদের সংগঠন শেয়ারবাজার বিনিয়োগকারী ঐক্য পরিষদের সভাপতি মিজানুর রশিদ চৌধুরী বলেন, কিছু কোম্পানি দালালদের মাধ্যমে এজিএম এজেন্ডা পাস করিয়ে নেয়। প্রকৃত বিনিয়োগকারীদের এজিএমে কথা বলতে দেওয়া হয় না। এমন পরিস্থিতিতে একইদিনে তিন থেকে চারটির বেশি এজিএম হলে বিনিয়োগকারীদের অংশগ্রহণ কঠিন হয়ে পড়ে। একদিনে আট থেকে ১০টি কোম্পানি এজিএমের আয়োজন বিনিয়োগকারীদের সঙ্গে প্রহসন ছাড়া কিছুই না। বিনিয়োগকারীদের ভোগান্তি কমাতে বিএসইসির দ্রুত পদক্ষেপ নেওয়া উচিত। তা না হলে এজিএমের প্রকৃত উদ্দেশ্য কখনোই পূরণ হবে না।

বিনিয়োগকারীরা জানান, বছরে একবার সুযোগ হয় কোম্পানির সঙ্গে সব বিষয়ে আলোচনা করার। কিন্তু একই সময় বিভিন্ন স্থানে এজিএম হওয়ায় এ সুযোগ থেকে বঞ্চিত হতে হচ্ছে। ৩০ মার্চ একই দিনে এবং একই সময়ে ভিন্ন ভিন্ন জায়গায় সাত-আটটি কোম্পানির এজিএম। যার একটি বিজয়নগরে, আরেকটি কুড়িলে। আবার অন্য একটি কোম্পানির এজিএম মিরপুরে।

বিনিয়োগকারীদের এড়িয়ে দায়সারাভাবে এজিএম করতেই কোম্পানিগুলো এ ধরনের অপকৌশলে আশ্রয় নিচ্ছে বলে অভিযোগ সাধারণ বিনিয়োগকারীদের।

স্টকমার্কেটবিডি.কম/এমএ