শেয়ারবাজারে বেড়েছে লেনদেন ও সূচক

DSE_CSE-smbdনিজস্ব প্রতিবেদক :

দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) টাকার অংকে দিনের লেনদেন বেড়েছে। এদিন বেড়েছে সব ধরণের মূল্য সূচক। অন্যদিকে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জেও (সিএসই) লেনদেন ৬৬ কোটি টাকা ছাঁড়িয়েছে। ডিএসই ও সিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা যায়।

ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা যায়, মঙ্গলবার ডিএসইতে ৯৯৫ কোটি ৯৩ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। গতকাল সোমবার সেখানে ৭৭৭ কোটি ১৫ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। আজ দিনশেষে দিনের লেনদেন আগের দিনের চেয়ে বেড়েছে।

এদিন ডিএসইতে ডিএসইএক্স সূচক আগের দিনের চেয়ে ৩৯.৪৮ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ৫৭৩৭ পয়েন্টে। আর ডিএসই শরিয়াহ সূচক ০.৬৬ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ১২৯৭ পয়েন্টে। ডিএসই-৩০ সূচক ২৩.৪০ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ২০৯৫ পয়েন্টে।

এদিন দিনভর লেনদেন হওয়া মোট ৩২৮টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ১২০টির, কমেছে ১৭১টির আর অপরিবর্তিত রয়েছে ৩৭টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের শেয়ার দর।

এদিন ডিএসইতে লেনদেনের শীর্ষ কোম্পানির মধ্যে রয়েছে – সিটি ব্যাংক, লংকাবাংলা ফাইন্যান্স, এবি ব্যাংক, বেক্সিমকো লিমিটেড, রতনপুর স্টিল, বেক্স ফার্মা, আইসিবি, ব্র্যাক ব্যাংক, ইসলামিক ফাইন্যান্স ও ডেল্টা ব্র্যাক হাউজিং।

এদিকে মঙ্গলবার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) ৬৬ কোটি ৪৯ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। গতকাল সোমবার সেখানে ৬৮ কোটি ৮৬ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়।

এদিন সিএসইতে লেনদেনের শীর্ষে ছিল ইষ্টার্ণ ব্যাংক ও সিটি ব্যাংক।

এদিন সিএসই সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ১১৭ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ১৭ হাজার ৭৯৪ পয়েন্টে। সিএসইতে মোট লেনদেন হয়েছে ২৫১টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের শেয়ার। এর মধ্যে দর বেড়েছে ৯৮টির, কমেছে ১২৭টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২৬টির।

স্টকমার্কেটবিডি.কম/এম

এমআই সিমেন্টের মূল্য সংবেদনশীল তথ্য নেই

mi cementনিজস্ব প্রতিবেদক :

শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত সিমেন্ট খাতের কোম্পানি এমআই সিমেন্ট লিমিটেডের অস্বাভাবিকহারে শেয়ার দর বাড়ার পেছনে কোনো কারণ নেই বলে জানিয়েছে কোম্পানিটি । মঙ্গলবার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে জানা এ তথ্য জানা যায়।

বিশ্লেষণে দেখা গেছে, গত ১৩ মার্চ কোম্পানি শেয়ারের দর ছিল ৮৩.৩০ টাকা। এরপর গতকাল ২৭ মার্চ দর বেড়ে লেনদেন হয় ১০১ টাকায়। এই সময়ে এ কোম্পানিটির শেয়ার দর উঠানামা করে। তবে দর বৃদ্দিকে অস্বাভাবিক বলে মনে করছে ডিএসই।

এর আগে এমআই সিমেন্টের কাছে সাম্প্রতিক সময়ে অস্বাভাবিকহারে শেয়ার দর বাড়ার কারণ জানতে চায় ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই)। জবাবে দর বাড়ার পেছনে অপ্রকাশিত কোনো মূল্য সংবেদনশীল তথ্য নেই বলে জানিয়েছে কোম্পানি কর্তৃপক্ষ।

স্টকমার্কেটবিডি.কম/এলকে/এমএ

কোম্পানি তালিকাভুক্ত করতে আরো প্রণোদনা ও টেক্স হলিডে

bsecনিজস্ব প্রতিবেদক :

দেশে ব্যবসারত বহুজাতিক কোম্পানিগুলোকে শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত করতে কঠোর পদক্ষেপ নেওয়ার সুপারিশ করেছে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ এন্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। বহুজাতিক কোম্পানিগুলোকে শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত হতে টেক্স হলিডে ও নানা ধরনের প্রণোদনা দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি তাদেরকে নৈতিকভাবে উদ্বুদ্ধ করা হয়। এরপরও কোম্পানিগুলো শেয়ারবাজারে আসছে না। তাই অতিরিক্ত কর বসানোসহ বিভিন্ন সুপারিশ উল্লেখ করে অর্থ মন্ত্রণালয়ে চিঠি দিয়েছে বিএসইসি।

এদিকে দীর্ঘদিন ধরে শেয়ার বিনিয়োগকারীরা বহুজাতিক কোম্পানিগুলোকে শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত করার দাবি করে আসছেন। বর্তমানে এ ধরনের প্রায় সাড়ে তিনশ’ নিবন্ধিত প্রতিষ্ঠান থাকলেও শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত রয়েছে মাত্র ১২টি কোম্পানি।

এবার বহুজাতিক কোম্পানিগুলোকে শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত করতে অর্থ মন্ত্রণালয় ও বিএসইসি কার্যকরভাবে প্রচেষ্টা চালাচ্ছে। এরইমধ্যে এ নিয়ে একাধিক বৈঠক করা হয়েছে। আর সম্প্রতি বিএসইসির পক্ষ থেকে বহুজাতিক কোম্পানিগুলোকে শেয়ারবাজারে নিয়ে আসার ব্যাপারে কিছু সুপারিশ তুলে ধরে চিঠি দিয়েছে।

চিঠিতে চারটি সুপারিশ করা হয়েছে। সুপারিশগুলোর মধ্যে রয়েছে – শেয়ারবাজারে আসতে কোম্পানিগুলোকে বাধ্য করা, তালিকাভুক্ত হলে বিশেষ কর সুবিধা দেওয়া, শেয়ারবাজারের বাইরে থাকা কোম্পানিগুলোর ওপর বাড়তি কর আরোপ ইত্যাদি।

চিঠিতে এসব কোম্পানি কী কারণে শেয়ারবাজারে আসছে না, সে বিষয়ে নিজেদের পর্যবেক্ষণও তুলে ধরে বিএসইসি।

বাজার সংশ্লিষ্টরা বলছেন, যতদিন পর্যন্ত শেয়ারবাজারে ব্যাপক হারে বহুজাতিক কোম্পানি এবং সরকারি মুনাফামুখী কোম্পানিগুলো তালিকাভুক্ত হবে না ততদিন পর্যন্ত বাজারে বিনিয়োগকারীদের আস্থা উচ্চ পর্যায়ে যাবে না। তাই এ ধরনের কোম্পানিগুলোকে বাজারে তালিকাভুক্ত করার ব্যাপারে উদ্যোগ নিতে হবে।

স্টকমার্কেটবিডি.কম/এমএ

আরএন স্পিনিংয়ের এজিএম ৬ দিন পিছালো

rn spinস্টকমার্কেট ডেস্ক :

বিগত ৩ বছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন ও অন্যান্য এজেন্ডা অনুমোদনের জন্য ৩০ মার্চ বেলা সাড়ে ১০টায় রাজধানীর শালবন মাল্টিপার্পাস হলের বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) আহ্বান করেছিল আরএন স্পিনিং লিমিটেড। মঙ্গলবার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে জানা এ তথ্য জানা যায়।

ডিএসই সূত্রে জানা গেছে, সভার সময় ৬ দিন পিছিয়ে ৫ এপ্রিল নির্ধারণ করা হয়েছে। রেকর্ড ১৫ মার্চ ছিল।

২০১৫ সালের ১ জানুয়ারি থেকে ২০১৬ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত ১৮ মাসে সমাপ্ত হিসাব বছরের জন্য ২০ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে কোম্পানিটি।

স্টকমার্কেটবিডি.কম/এস