বাটা সু‌’র অন্তবর্তীকালীন নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা

logo-bataস্টকমার্কেট ডেস্ক :

শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানি বাটা সু‌’ লিমিটেডের পরিচালনা বোর্ড শেয়ারহোল্ডারদের ২৩০ শতাংশ নগদ অন্তকর্তীকালীন লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। কোম্পানির সূত্রে এ তথ্য জানা যায়।

বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত বোর্ড সভায় চলতি বছরের জুন মাসে শেষ হওয়া ২০১৭ সালের ৯ মাসের অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে এই লভ্যাংশ দেয় কোম্পানিটি।

এসময় কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৫৬.৭১ টাকা। আর কোম্পানির শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ৪৭.৮৭ টাকা।

কোম্পানিটির রেকর্ড ডেট ০৪ ডিসেম্বর ।

স্টকমার্কেটবিডি.কম/এমএইচ.

প্রিমিয়ার সিমেন্টের রেজিষ্টার্ড কার্যালয় পরিবর্তন

primierস্টকমার্কেট ডেস্ক :

শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত সিমেন্ট শিল্প খাতের কোম্পানি প্রিমিয়ার সিমেন্ট কোম্পানি লিমিটেডের রেজিষ্টার্ড কার্যালয়ের ঠিকানা পরিবর্তন করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার ডিএসই’র ওয়েবসাইটে এ তথ্য প্রকাশিত হয়।

সূত্র জানায়, কোম্পানিটির প্রধান অফিস চট্টগ্রামে স্থানান্তর করা হয়েছে।

এর আগে কোম্পানির প্রধান কার্যালয় ছিল রাজধানীর কারওয়ানবাজার এলাকায়।

আগামীকাল ১ ডিসেম্বর থেকে সকল বিনিয়োগকারী ও স্টেক হোল্ডারদের নতুন অফিসে যোগাযোগ করতে বলা হয়েছে।

স্টকমার্কেটবিডি.কম/এমএ

এমারেল্ড ওয়েলের প্রধান কার্যালয় স্থানান্তর

emarস্টকমার্কেট ডেস্ক :

শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত খাদ্য ও আনুসাঙ্গিক খাতের কোম্পানি এমারেল্ড ওয়েল কোম্পানি লিমিটেডের প্রধান কার্যালয়ের ঠিকানা পরিবর্তন করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার ডিএসই’র ওয়েবসাইটে এ তথ্য প্রকাশিত হয়।

সূত্র জানায়, কোম্পানিটির প্রধান অফিস রাজধানীর কাকরাইলে হালিমুন্নেছা কোর্ট নামে এক ভবনে স্থানান্তর করা হয়েছে।

এর আগে কোম্পানির প্রধান কার্যালয় ছিল রাজধানীর পল্টন এলাকায়।

আগামীকাল ১৬ নভেম্বর থেকে সকল বিনিয়োগকারী ও স্টেক হোল্ডারদের নতুন অফিসে যোগাযোগ করতে বলা হয়েছে।

স্টকমার্কেটবিডি.কম/এমএ

  1. ব্র্যাক ব্যাংক
  2. স্কয়ার ফার্মা
  3. গ্রামীনফোন লিমিটেড
  4. সিটি ব্যাংক
  5. এবি ব্যাংক
  6. লংকাবাংলা ফাইন্যান্স
  7. কনফিডেন্স সিমেন্ট
  8. ইউনাইটেড পাওয়ার
  9. ঢাকা ব্যাংক
  10. জেনারেশন নেক্সট ফ্যাশন।

শেষ দিনে ডিএসইতে লেনদেন কমলেও সিএসইতে বেড়েছে

DSE_CSE-smbdস্টকমার্কেট প্রতিবেদক :

দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) দিনশেষে টাকার অংকে লেনদেনের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৭৩৭ কোটি টাকা। এদিন সেখানে লেনদেন কমলেও মূল্য সূচকের পরিমান বেড়েছে। অন্যদিকে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) লেনদেন ও সূচক দুটো্ই বেড়েছে। ডিএসই ও সিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা যায়।

বৃহস্পতিবার লেনদেন শেষে ডিএসইতে প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৪৬.৩৮ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ৬২৮২ পয়েন্টে। আর ডিএসই শরিয়াহ সূচক ৬.৩৬ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ১৩৭৫ পয়েন্টে এবং ডিএস-৩০ সূচক ৯.৩৪ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করে ২২৭৯ পয়েন্টে।

এদিন লেনদেন হয়েছে ৭৩৭ কোটি ৯৮ লাখ টাকা। গতকাল মঙ্গলবার লেনদেনের পরিমাণ ছিল ৮৮৩ কোটি ২২ লাখ টাকা।

ডিএসইতে আজ ২৯৬টি কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের শেয়ারের লেনদেন হয়। এর মধ্যে ১৭২টির শেয়ারের দর বেড়েছে, কমেছে ৯০টির। আর দর অপরিবর্তিত আছে ৩৪টির।

এদিন ডিএসইতে লেনদেনে এগিয়ে থাকা ১০টি কোম্পানি হলো – ব্র্যাক ব্যাংক, স্কয়ার ফার্মা, গ্রামীনফোন লিমিটেড, সিটি ব্যাংক, এবি ব্যাংক, লংকাবাংলা ফাইন্যান্স, কনফিডেন্স সিমেন্ট, ইউনাইটেড পাওয়ার, ঢাকা ব্যাংক ও জেনারেশন নেক্সট ফ্যাশন।

এদিকে দিনশেষে দেশের অপর বাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) ব্রড ইনডেক্স ৭০.৩৯ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ১১ হাজার ৭৬৯ পয়েন্টে।

দিনভর লেনদেন হওয়া ২১০টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ১১৫টির, কমেছে ৬৭টির ও দর অপরিবর্তিত রয়েছে ২৮টির।

এ দিন টাকায় লেনদেন হয়েছে ৬১ কোটি ২১ লাখ টাকা। গতকাল বুধবার ছিল ৫৪ কোটি ৭৫ লাখ টাকা। এহিসাবে লেনদেন আগের দিনের চেয়ে বেড়েছে।

দিনশেষে সিএসইতে লেনদেনের শীর্ষে রয়েছে ব্যাংক এশিয়া ও কনফিডেন্স সিমেন্ট।

স্টকমার্কেটবিডি.কম/এমএ

ইষ্টার্ণ ক্যাবলস ৩.৪৭ লাখ শেয়ার বিক্রি করবে

eastern cableস্টকমার্কেট ডেস্ক :

শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত প্রকৌশল শিল্প খাতের কোম্পানি ইষ্টার্ণ ক্যাবলস লিমিটেডের একজন পরিচালক শেয়ার বিক্রয়ের ঘোষণা দিয়েছেন। বৃহস্পতিবার ডিএসই’র ওয়েবসাইটে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

খন্দকার মনির উদ্দিন নামে এই পরিচালক হাতে থাকা ৮ লাখ ৮৭ হাজার ১০০টি শেয়ারের মধ্যে ৩ লাখ ৪৭ হাজার ১০০ শেয়ার চলমান বাজার দরে বিক্রয়ের আগ্রহ প্রকাশ করেছে।

ঘোষণার পর ৩০ দিনের মধ্যে উল্লেখিত পরিমাণ শেয়ার বিক্রয় করবেন বলে কোম্পানিটির পক্ষ থেকে জানানো হয়।

কোম্পানিটি এসব শেয়ার চলমান বাজার দরে পাবলিক ও ব্লক মার্কেটে বিক্রয় করবে।

স্টকমার্কেটবিডি.কম/এমএ

লুব্রিকেন্ট ব্যবসায় আরো এক ধাপ এগিয়ে ইফাদ অটোস : গালফ অয়েলের সাথে চুক্তি

Signing Picস্টকমার্কেট প্রতিনিধি :

ব্যবসা সম্প্রসারনের অংশ হিসেবে লুব্রিকেন্ট ব্যবসায় আরো এক ধাপ এগিয়ে ইফাদ অটোস। বিশ্বখ্যাত গালফ ওয়েল ইন্টারন্যাশনালের সাথে যৌথভাবে এই ব্যবসা শুরু করতে একটি চুক্তি করেছে ইফাদ অটোস লিমিটেড।

গতকাল বুধবার সন্ধ্যায় রাজধানীর গুলশানের এক অভিজাত হোটেলে দুটি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে চুক্তিটি স্বাক্ষরিত হয়। এই চুক্তির ফলে বাংলাদেশের স্বনামধন্য অটোমোবাইল কোম্পানী ইফাদ অটোস লিমিটেড যুক্তরাজ্য ভিত্তিক গালফ ইন্টারন্যাশনালের সাথে যৌথ উদ্যোগে লুব্রিকেন্ট অয়েল প্রস্তুত এবং বাংলাদেশের বাজারে সরবরাহ করবে।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ এমপি। বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশে নিযুক্ত ডেপুটি ব্রিটিশ হাইকমিশনার মি. ডেভিড এ্যাসলী।

অনুষ্ঠানে ইফাদ অটোস লিমিটেডের চেয়ারম্যান ইফতেখার আহমেদ টিপু বলেন, গালফ অয়েল ইন্টারন্যাশনালের সাথে চুক্তি নি:সন্দেহে একটি স্মরনীয় মূহুর্ত। প্রতিষ্ঠার পর থেকে ইফাদ যেভাবে মানুষের আস্থা ও বিশ্বাস অর্জনে সমর্থ হয়েছে, ভবিষ্যতেও সে ধারা অব্যাহত থাকবে। বিগত ৩২ বছরেরও বেশী সময় ধরে ইফাদ অটোস দেশের পরিবহন খাতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখে আসছে। গাড়িতে ব্যবহৃত হয় এমন আরো কিছু জিনিষপত্র বাজারজাত করারও পরিকল্পনা রয়েছে বলেও জানান তিনি।

গালফ অয়েল বাংলাদেশের ম্যানেজিং ডিরেক্টর অমলান মিত্র বলেন, গালফ এবং ইফাদ পারস্পরিক অংশীদারিত্বের ঘোষণা দিতে পারায় তিনি উৎফুল্ল।

তিনি বলেন, ইফাদ বাংলাদেশের একটি প্রতিষ্ঠিত এবং স্বনামধন্য বাণিজ্যিক গ্রুপ। যার রয়েছে চমৎকার মার্কেটিং টিম। রয়েছে গালফের সহযোগি প্রতিষ্ঠান অশোক লেল্যান্ডের সাথে দীর্ঘ এবং সাফল্যজনক ইতিহাস। তিনি দৃঢ়তার সাথে বলেন, ব্যবসা সম্প্রসারণের এই যৌথ উদ্যোগটি অনন্য দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে।

ইফাদ অটোস লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক তাসকিন আহমেদ বলেন, বাংলাদেশের উন্নয়নে ইফাদের অনেক অবদান রয়েছে। ইফাদ অটোসের সাথে পৃথিবীর বিখ্যাত এবং সুনামধন্য গালফ অয়েল ব্র্যান্ডের সাথে পার্টনারশিপ ব্যবসা ২০২২ সালের মধ্যে ইফাদের যে লক্ষ্য তা অর্জনে আরো বেশী ভুমিকা রাখবে। তিনি আশা প্রকাশ করে বলেন, ভবিষ্যৎ অগ্রযাত্রায় গালফ ইফাদের পাশে থাকবে তাদের অংশীদার হিসেবে।

অনুষ্ঠানে ইফাদ গালফ অয়েল ইন্টারন্যাশনালের ভাইস প্রেসিডেন্ট-(ইন্টারন্যাশনাল) মি: ফ্রান্ক রুট্টেন এবং গালফ অয়েল বাংলাদেশের চেয়ারম্যান মি. রবি চাওলা বক্তব্য রাখেন।

এ সময় অন্যান্যের মধ্যে দুটি প্রতিষ্ঠানের উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তা, ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ, ব্যাংকার সহ গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

৪ কোম্পানির ১ম প্রান্তিকের প্রতিবেদন প্রকাশ

financialস্টকমার্কেট প্রতিনিধি :

শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত ৪ কোম্পানি ১ম প্রান্তিকের অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। বুধবার অনুষ্ঠিত কোম্পানিগুলো বোর্ড সভায় এসব প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার ডিএসই’র সূত্রে এ তথ্য জানা যায়।

রংপুর ফাউন্ড্রি লিমিটেড :

শেয়ারবাজারের তালিকাভুক্ত প্রকৌশল খাতের কোম্পানি রংপুর ফাউন্ড্রি লিমিটেডের চলতি বছরের ১ম প্রান্তিকের অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। বৃহস্পতিবার ডিএসই’র সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

বুধবার অনুষ্ঠিত কোম্পানিটির বোর্ড সভায় ১ম প্রান্তিকের আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করা হয়। এই প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর, ১৭) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.১২ টাকা। গত বছরের এ সময়ের কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) ছিল ১.০২ টাকা। এ হিসাবে চলতি বছরের ১ম প্রান্তিকে কোম্পানির ইপিএস বেড়েছে।

চলতি বছরের ৩০ সেপ্টেম্বর কোম্পানির শেয়ার প্রতি প্রকৃত সম্পদের দায় মূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ২৪.৮৫ টাকা। যা ২০১৭ সালের ৩০ জুন ছিল ২৩.৭২ টাকা।
গোল্ডেন হার্ভেস্ট এগ্রো ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড :

শেয়ারবাজারের তালিকাভুক্ত খাদ্য ও আনুসাঙ্গিক খাতের কোম্পানি গোল্ডেন হার্ভেস্ট এগ্রো ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের চলতি বছরের ১ম প্রান্তিকের অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। বৃহস্পতিবার ডিএসই’র সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

বুধবার অনুষ্ঠিত কোম্পানিটির বোর্ড সভায় ১ম প্রান্তিকের আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করা হয়। এই প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর, ১৭) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৬৭ পয়সা। গত বছরের এ সময়ের কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) ছিল ৫৯ পয়সা। এ হিসাবে চলতি বছরের ১ম প্রান্তিকে কোম্পানির ইপিএস বেড়েছে ।

চলতি বছরের ৩০ সেপ্টেম্বর কোম্পানির শেয়ার প্রতি প্রকৃত সম্পদের মূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ২২.৮৭ টাকা। যা ২০১৬ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর ছিল ২১.১৫ টাকা।
আল-হাজ্ব টেক্সটাইল মিলস লিমিটেড :

শেয়ারবাজারের তালিকাভুক্ত বস্ত্র খাতের কোম্পানি আল-হাজ টেক্সটাইল মিলস লিমিটেডের চলতি বছরের ১ম প্রান্তিকের অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। বৃহস্পতিবার ডিএসই’র সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

বুধবার অনুষ্ঠিত কোম্পানিটির বোর্ড সভায় ১ম প্রান্তিকের আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করা হয়। এই প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর, ১৭) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ২৩ পয়সা। গত বছরের এ সময়ের কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) ছিল ২১ পয়সা। এ হিসাবে চলতি বছরের ১ম প্রান্তিকে কোম্পানির ইপিএস বেড়েছে ।

চলতি বছরের ৩০ সেপ্টেম্বর কোম্পানির শেয়ার প্রতি প্রকৃত সম্পদের মূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ১৩.৮৩ টাকা। যা ২০১৭ সালের ৩০ জুন ছিল ১৩.৫৯ টাকা।

মেঘনা সিমেন্ট মিলস লিমিটেড :

শেয়ারবাজারের তালিকাভুক্ত সিমেন্ট খাতের কোম্পানি মেঘনা সিমেন্ট মিলস লিমিটেডের চলতি বছরের ১ম প্রান্তিকের আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। বৃহস্পতিবার ডিএসই’র সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

বুধবার অনুষ্ঠিত কোম্পানিটির বোর্ড সভায় ১ম প্রান্তিকের আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করা হয়। এই প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর, ১৭) কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ২২ পয়সা। গত বছরের এ সময়ের কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) ছিল ১৬ পয়সা । এ হিসাবে চলতি বছরের ১ম প্রান্তিকে কোম্পানির ইপিএস বেড়েছে ।

চলতি বছরের ৩০ সেপ্টেম্বর কোম্পানির শেয়ার প্রতি প্রকৃত সম্পদের মূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ৩৬.৯৩ টাকা। যা ২০১৭ সালের ৩০ জুন ছিল ৩৬.৭১ টাকা।
স্টকমার্কেটবিডি.কম/এমএইচ

চলতি বছরের ১ম চার মাসে শেয়ারবাজারে ৪২,০০০ নতুন বিনিয়োগকারী

cdblস্টকমার্কেটবিডি প্রতিনিধি :

চলতি বছরের প্রথম চার মাসে দেশের শেয়ারবাজারে বিনিয়োগকারী বেড়েছে প্রায় ৪২ হাজার। বেশ কিছু কোম্পানির শেয়ারের দাম যৌক্তিক মূল্যের চেয়ে কম থাকার পাশাপাশি শেয়ারবাজার ভালো হবে এমন বিশ্বাসে নতুন করে বিনিয়োগকারীরা বাজারমুখী হচ্ছেন বলে মনে করছেন বাজার সংশ্লিষ্টরা।

তারা বলছেন, নতুন বিনিয়োগকারীদের বেশিরভাগই বিদেশি ও ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারী। এর মধ্যে বিদেশিরা হাতে গোনা কয়েকটি কোম্পানিতে বিনিয়োগ করছেন।

ইলেক্ট্রনিক পদ্ধতিতে শেয়ার সংরক্ষণকারী প্রতিষ্ঠান সেন্ট্রাল ডিপজিটরি বাংলাদেশ লিমিটেড’র (সিডিবিএল) তথ্য মতে, ২০১৬-১৭ অর্থবছরের শেষ দিন অর্থাৎ ৩০ জুন বিনিয়োগকারীদের বেনিফিশিয়ারি ওনার্স (বিও) অ্যাকাউন্টের সংখ্যা ছিলো ২৯ লাখ ২৭ হাজার ৭৬০টি।

কিন্তু নির্ধারিত সময়ে নবায়ন ফি পরিশোধ না করায় এ সময় অন্তত ২ লাখ ৭০ হাজার ৫২০টি বিও অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দেয় সিডিবিএল।

ফলে জুলাই মাসে সেই বিও সংখ্যা কমে দাঁড়ায় ২৬ লাখ ৫৭ হাজার ২৪০টিতে। সেখান থেকে আগস্ট মাসে তা আরো কমে দাঁড়ায় ২৬ লাখ ৫০ হাজার ৭০৫টিতে। তবে পরের মাস সেপ্টেম্বরে বিও হিসাব বেড়ে ২৬ লাখ ৮২ হাজার ৯৬০টিতে দাঁড়ায়। এরপর অক্টোবর ও নভেম্বর মাসেও তা বৃদ্ধি পেয়ে ক্রমান্বয়ে ২৬ লাখ ৯৫ হাজার ৩৪৮টি ও ১২ নভেম্বর (রোববার) পর্যন্ত ২৬ লাখ ৯৮ হাজার ৯৫২টিতে দাঁড়িয়েছে।

দেশের শেয়ারবাজারে তিন শ্রেণির মোট ২৬ লাখ ৯৮ হাজার ৯৫২টি বিও রয়েছে। এর মধ্যে পুরুষ বিনিয়োগকারীদের বিও সংখ্যা ১৯ লাখ ৭২ হাজার ৫৪৩টি। নারী বিনিয়োগকারীর সংখ্যা ৭ লাখ ১৪ হাজার ৭৮১টি। এছাড়াও প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীর সংখ্যা ১১ হাজার ৬২৮টি।

স্টকমার্কেটবিডি.কম/এমএ