খাদ্য নিরাপত্তায় বর্তমান সরকার বিভিন্ন কর্মসূচি দিয়েছে : মেনন

iiiস্টকমার্কেটবিডি প্রতিবেদক :

সমাজকল্যাণমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন বলেছেন, জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকি মোকাবেলায় ও খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে বর্তমান সরকারকেই ভোট দিয়ে নির্বাচিত করতে হবে। কেননা এই সরকারই পৃথিবীর অন্যান্য দেশগুলোর আগে নিজের অর্থায়নে জলবায়ু ট্রাস্ট প্রতিষ্ঠা করে জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলায় বিভিন্ন কর্মসূচি দিয়েছে। এটিকে অব্যাহত রাখতে হবে।

আজ জাতীয় প্রেসক্লাবে বাংলাদেশ কৃষি ফার্ম শ্রমিক ফেডারেশন কর্তৃক আয়োজিত ‘জলবায়ু পরিবর্তন ও খাদ্য সার্বভৌমত্বের উপর প্রভাব’ শীর্ষক আলোচনা সভায় সমাজকল্যাণমন্ত্রী ও বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন এসব কথা বলেন।

মেনন বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ প্রথম ১০টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান ছয় নম্বরে।অথচ পরিবেশ দূষণে বাংলাদেশের অবস্থান সর্বনিম্নে। তিনি জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে বাংলাদেশের মত সমুদ্র তীরবর্তী নিচু দেশগুলোর ঝুঁকি মোকাবেলায় এগিয়ে আসার জন্য উন্নত বিশ্বের প্রতি আহবান জানান।

সমাজকল্যাণমন্ত্রী বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনের ক্ষতিকারক প্রভাব মোকাবেলায় বিশ্বের শক্তিধর দেশগুলোকে এগিয়ে আসতে হবে। ধনী দেশগুলোর ভোগবাদী মানসিকতার নির্মম শিকার হচ্ছে বাংলাদেশের মতো ছোট ছোট দেশগুলো। যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া, চীনের মাথাপিছু কার্বন উদগিরণের পরিমাণ যথাক্রমে যুক্তরাষ্ট্র ১৭.৬২ মেট্রিক টন, রাশিয়ার ১২.৫৫ মে.টন, চীনের ৬.৫২ মে. টন। অথচ আমাদের বাংলাদেশের মাথাপিছু কার্বন উদগিরণের পরিমান মাত্র ০.৩৭ মে. টন। তাহলে ধনী দেশোগুলোর কার্বন ব্যবহারের কুফল কেন আমরা ভোগ করতে যাবো। কাজেই অবিলম্বে ধনী দেশগুলোর যত্রতত্র কার্বনের ব্যবহার কমিয়ে ফেলতে হবে।

কৃষি ফার্ম শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি আব্দুল মজিদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির পলিট ব্যুরো সদস্য আনিছুর রহমান মল্লিক, শ্রমিক ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক, আমিনুল হক আমিন। অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ পাঠ করেন অনুষ্ঠানের সমন্বয়ক নাসরিন সুলতানা।

স্টকমার্কেটবিডি.কম/জেড

এলএনজি আমদানিতে ৩,১০০ কোটি টাকা ভর্তুকির সিদ্ধান্ত

4c1efaa383f6601503946acdae3dfdc9-5bc5c98503d45স্টকমার্কেটবিডি প্রতিবেদক :

গ্যাসের দাম না বাড়িয়ে তরলীকৃত প্রাকৃতিক গ্যাস (এলএনজি) আমদানিতে ৩ হাজার ১০০ কোটি টাকা ভর্তুকি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশে এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন (বিইআরসি)। মঙ্গলবার (১৬ অক্টোবর) বিকেলে এক সংবাদ সম্মেলনে সংস্থাটির এই সিদ্ধান্তের কথা জানায়।

সংবাদ সম্মেলনে বিআরসি সদস্য আব্দুল আজিজ খান বলেন, ‘এলএনজি আমদানিতে ৩ হাজার ১০০ কোটি টাকা ভর্তুকি প্রয়োজন হবে। যা সরকারি তহবিল থেকে সরবরাহ করা হবে।’ এই পরিমাণ ভর্তুকি দিলে এলএনজি আমাদনিতে আর কোনও সমস্যা হবে না বলেও জানান কমিশনের এই সদস্য।

বিইআরসি চেয়ারম্যান মনোয়ার ইসলাম বলেন, ‘১৭ মার্চ গ্যাস ট্রান্সমিশন কোম্পানি (জিটিসিএল) কমিশনে সঞ্চালন ট্যারিফ বাড়ানোর আবেদন করে। এরপর ২০ মার্চ গ্যাস বিতরণ তিতাস, বাখরাবাদ, পশ্চিমাঞ্চল ও কর্ণফুলী এবং ২১ মার্চ জালালাবাদ ও সুন্দরবন গ্যাস বিতরণ কোম্পানি পৃথকভাবে তাদের বিতরণ চার্জসহ ভোক্তা পর্যায়ে গ্যাসের মূল্য বাড়ানোর আবেদন করে।’

তিনি আরও বলেন, ‘‘কমিশন আবেদনগুলো বিবেচনা করে জুনে শুনানি করে। গ্যাসের উৎপাদন, এলএনজি আমদানি, সঞ্চালন ও বিতরণ ব্যয় বেড়ে যাওয়ার পরও সার্বিক দিক বিবেচনা করে ‘বিইআরসি রেগুলেটরি আইন ২০০৩ এর ধারা ২২ (খ) এবং ৩৪’-এ দেওয়া ক্ষমতা বলে কমিশন ভোক্তাপর্যায়ে বিদ্যমান মূল্যহার পরিবর্তন না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।’’

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, অভ্যন্তরীণ সম্পদ বিভাগের জারি করা ২৬ সেপ্টেম্বরের এসআরও-এর মাধ্যমে ১৮ সেপ্টেম্বর থেকে এলএনজি আমাদনির শুল্ক প্রত্যাহার করা হয়েছে। এছাড়া ওই বিভাগের জারি করা ৩ অক্টোবরের আলাদা দুটি এসআরও-এর মধ্যেমে ১৮ সেপ্টেম্বর থেকে প্রাকৃতিক গ্যাসের উৎপাদন পর্যায়ে সম্পূরক শুল্ক এবং আমদানি-পর্যায়ে অগ্রিম কর ও অগ্রিম মূসক প্রত্যাহার করা হয়েছে। এরই প্রেক্ষাপটে বিদ্যমান গ্যাস মূল্যহার বণ্টন, বিবরণী সংশোধন করে কমিশন আদেশ জারি করার সিদ্ধান্ত নেয়।

কমিশন সংবাদ সম্মেলনে কমিশনের অন্য সদস্য রহমান মুরশেদ, মিজানুর রহমান ও মাহমুদ উল হক ভূঁইয়া উপস্থিত ছিলেন।

স্টকমার্কেটবিডি.কম/জেড

হাওয়েল টেক্সটাইলের বাৎসরিক বোর্ড সভা ২৮ অক্টোবর

hawelস্টকমার্কেটবিডি ডেস্ক :

শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত বস্ত্র শিল্প খাতের কোম্পানি হাওয়েল টেক্সটাইল লিমিটেডের বাৎসরিক বোর্ড সভা আগামী ২৮ অক্টোবর অনুষ্ঠিত হবে। মঙ্গলবার ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা যায়।

সূত্র থেকে জানা যায়, সেদিন বেলা সড়ে ৪টায় রাজধানীর গুলশানে কোম্পানিটির প্রধান কার্যালয়ে বোর্ড সভাটি অনুষ্ঠিত হবে।

আসন্ন বোর্ড সভায় ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) লিস্টিং রেগুলেশন ২০১৫ এর ১৯(১) অনুযায়ী ৩০ জুন শেষ হওয়া ২০১৮ সালের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করা হবে।

এ সভায় বিনিয়োগকারীদের জন্য লভ্যাংশ ঘোষণা করা হবে। এছাড়া রেকর্ড ডেট ও এজিএমের দিন ঘোষণা করা হবে।

গত বছর ২০১৭ সালে হাওয়েল টেক্সটাইল লিমিটেড শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ১৫ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ ঘোষণা করেছিল।

স্টকমার্কেটবিডি.কম/বি

নূরানী ডায়িংয়ের বাৎসরিক বোর্ড সভা আহবান

nuraniস্টকমার্কেটবিডি ডেস্ক :

শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত বস্ত্র শিল্প খাতের কোম্পানি নূরানী ডায়িং লিমিটেডের বাৎসরিক বোর্ড সভা আগামী ২৫ অক্টোবর অনুষ্ঠিত হবে। মঙ্গলবার ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা যায়।

সূত্র থেকে জানা যায়, সেদিন বেলা ৪টায় রাজধানীর পল্টনে কোম্পানিটির প্রধান কার্যালয়ে বোর্ড সভাটি অনুষ্ঠিত হবে।

আসন্ন বোর্ড সভায় ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) লিস্টিং রেগুলেশন ২০১৫ এর ১৯(১) অনুযায়ী ৩০ জুন শেষ হওয়া ২০১৮ সালের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করা হবে।

এ সভায় বিনিয়োগকারীদের জন্য লভ্যাংশ ঘোষণা করা হবে। এছাড়া রেকর্ড ডেট ও এজিএমের দিন ঘোষণা করা হবে।

গত বছর ২০১৭ সালে নূরানী ডায়িং লিমিটেড শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ১০ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ ঘোষণা করেছিল।

স্টকমার্কেটবিডি.কম/বি

ইন্দো-বাংলা ফার্মাসিটিক্যালসের লেনদেন শুরু বৃহস্পতিবার

indoস্টকমার্কেটবিডি প্রতিবেদক :

আইপিও’র সকল প্রক্রিয়া শেষ করে ইন্দো-বাংলা ফার্মাসিটিক্যালস লিমিটেডের লেনদেন শুরু হবে আগামী বৃহস্পতিবার (১৮ অক্টোবর)। মঙ্গলবার ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা যায়।

ডিএসই জানায়, কোম্পানিটি নতুন হিসাবে এন ক্যাটাগরিতে লেনদেন করবে। কোম্পানির ট্রেডিং কোড “IBP” আর ডিএসইতে কোম্পানির কোড নম্বর ১৮৪৯৪.

সূত্র থেকে জানা যায়, সম্প্রতি আইপিও শেয়ার শেয়ারহোল্ডারদের বিও হিসাবে জমা দেওয়ার পক্রিয়া সম্পন্ন করে সিডিবিএল। ইতোমধ্যে এ কোম্পানিটির শেয়ার অনুমোদন দিয়েছে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ (সিএসই)।

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ (সিএসই) এর আনুমোদন সাপেক্ষে উভয় শেয়ারবাজারে ইন্দো-বাংলা ফার্মাসিটিক্যালস লিমিটেডের শেয়ার লেনদেন শুরু হবে।

স্টকমার্কেটবিডি.কম/জেড

আমরা টেকনোলজিসের বাৎসরিক বোর্ড সভা ২৪ অক্টোবর

aamra-technology-limitedস্টকমার্কেটবিডি ডেস্ক :

শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত আইটি শিল্প খাতের কোম্পানি আমরা টেকনোলজিস ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের বাৎসরিক বোর্ড সভা আগামী ২৪ অক্টোবর অনুষ্ঠিত হবে। মঙ্গলবার ডিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা যায়।

সূত্র থেকে জানা যায়, সেদিন বেলা সাড়ে ৩টায় রাজধানীর বনানীতে কোম্পানিটির প্রধান কার্যালয়ে বোর্ড সভাটি অনুষ্ঠিত হবে।

আসন্ন বোর্ড সভায় ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) লিস্টিং রেগুলেশন ২০১৫ এর ১৯(১) অনুযায়ী ৩০ জুন শেষ হওয়া ২০১৮ সালের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করা হবে।

এ সভায় বিনিয়োগকারীদের জন্য লভ্যাংশ ঘোষণা করা হবে। এছাড়া রেকর্ড ডেট ও এজিএমের দিন ঘোষণা করা হবে।

গত বছর ২০১৭ সালে আমরা টেকনোলজিস লিমিটেড শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ১০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা করেছিল।

স্টকমার্কেটবিডি.কম/বি

ব্যাংক দেউলিয়া হয়ে গেছে, মূলধন নেই, এমনটা কাম্য নয়: মেয়র

bank_1স্টকমার্কেটবিডি প্রতিবেদক :

‘ব্যাংক দেউলিয়া হয়ে গেছে, মূলধন নেই, এমনটা কাম্য নয়’ উল্লেখ করে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন বলেছেন, ‘জনগণের টাকায় চোর-বাটপার লালন-পালনের কোনো মূল্য নেই। যে হাজার হাজার কোটি টাকা লোন নিয়ে পালিয়ে যাচ্ছে। সেই টাকা জনগণের।’

তিনি বলেন, ‘ব্যাংকগুলোকে মূলধন দিচ্ছে সরকার। তাও জনগণের টাকায়৷ এটা কাম্য নয়। জনগণের ট্যাক্সের পয়সায় চোর-বাটপারদের পুনর্বাসন করার কোনো সুযোগ নেই।’

মঙ্গলবার নগর ভবনে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড আয়োজিত জরিপ, করনেট সম্প্রসারণ ও করদাতা উদ্বুদ্ধকরণ বিষয়ক সভায় মেয়র এসব কথা বলেন।

মেয়র বলেন, ‘জনগণের ট্যাক্সের পয়সার স্বচ্ছতা থাকতে হবে। তাহলে সবাই কর সঠিক সময়ে দিবে।’

এ সময় জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের কাছে উপকর দাবি করেন মেয়র খোকন।

তিনি বলেন, ‘১২০ কোটি টাকা এ বছর জাতীয় রাজস্ব বোর্ডকে দিয়েছে ডিএসসিসি’।

‘আমরা যেভাবে দিতে চাই, সেভাবে নিতে চাই’ এমন কথা উল্লেখ করে মেয়র বলেন, ‘সিটি করপোরেশন আইন ২০০৯ এর চতুর্থ তফসিলে ১৭ নম্বর অনুচ্ছেদে বলা আছে, সিটি করপোরেশন এলাকায় সরকার যে কর আদায় করবে, সেখান থেকে সিটি করপোরেশন কর্তৃপক্ষকে একটা উপকর প্রদান করবে। এটা আইনে পরিষ্কার বলা আছে।’

তিনি আরো বলেন, ‘বিগত সময় প্রধানমন্ত্রীর সাথে কথা হয়েছে এ বিষয়ে। তিনি একমত পোষণ করেছেন।’

মেয়র বলেন, ‘ঢাকা শহর থেকে শুধু ট্যাক্স আদায় করলে হবে না। গ্রামের অনেক জমির দাম বৃদ্ধি পেয়েছে। সেখান থেকেও ট্যাক্স আদায় করতে হবে। না হলে দেশের প্রবৃদ্ধি হবে না।’

মেয়র ছাড়াও অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেন ভূইয়া।

এনবিআর চেয়ারম্যান বলেন, সিটি করপোরেশনের নাগরিকদের বছরে ৫ হাজার টাকা মাত্র ট্যাক্স। যা অনেকে জানেন না, কিংবা ভয়ে জানতে চায় না।

তিনি বলেন, আগামী নির্বাচনে একটা উদ্যোগ নেয়া হবে। যারা নির্বাচনে প্রার্থী হবেন তাদের টিআইএ নম্বর শুধু দিলে হবে না। রিটার্ন দাখিলের কপি দেখাতে হবে। একই সাথে যারা ফ্ল্যাট বাসায় থাকেন তাদের সবার খোঁজ নেওয়া হবে তারা ট্যাক্স দেয় কি না।

এমন উদ্যোগ খুব শিগগিরই নেয়া হবে বলে জানান এনবিআর চেয়ারম্যান।

তিনি বলেন, আগামী এক বছরের মধ্যে ট্যাক্স রেজিস্ট্রেশন দ্বিগুণ বাড়ানো হবে। রিটার্ন দাখিলের সংখ্যাও দ্বিগুণ বৃদ্ধি করা হবে। এ জন্য ট্যাক্স অফিসকে আয়কর মেলার রূপ দিতে হবে। সেই সাথে ট্যাক্স অফিসের সকল কর্মকর্তার ব্যবহার ভালো করার পাশাপাশি অফিসের পরিবেশ উন্নত করার নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।

জনগণের সাথে মিশে যাওয়ার দক্ষতা বৃদ্ধি করার পরামর্শও দেন এনবিআর চেয়ারম্যান।

জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের কর কমিশনার (ঢাকা অঞ্চল) মো. আসাদুজ্জামানের সভাপতিত্বে আরো বক্তব্য রাখেন এনবিআর সদস্য (কর প্রশাসন ও মানব সম্পদ ব্যবস্থাপনা) জিয়া উদ্দিন মাহমুদ, সদস্য (আয়কর জরিপ ও পরিদর্শক) মোহাম্মদ গোলাম নবী, বিজিএমইএ পরিচালক মো. মনির হোসেন প্রমুখ।

স্টকমার্কেটবিডি.কম/জেড

শান্তা আমানাহ শরিয়াহ ফান্ডের প্রসপেক্টাস অনুমোদন

bsecস্টকমার্কেটবিডি প্রতিবেদক :

শান্তা আমানাহ শরিয়াহ ফান্ডের খসড়া প্রসপেক্টাস অনুমোদন করেছে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)।

মঙ্গলবার (১৬ অক্টোবর) নিয়ন্ত্রক সংস্থার ৬৬১তম সভায় এ অনুমোদন দেওয়া হয়। নির্বাহী পরিচালক সাইফুর রহমান স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এতে বলা হয়, সভায় বে-মেয়াদী মিউচ্যুয়াল ফান্ড শান্তা আমানাহ শরিয়াহ ফান্ডের খসড়া প্রসপেক্টাস অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। ফান্ডটির প্রাথমিক লক্ষ্যমাত্রা ৩০ কোটি টাকা উত্তোলন। এর মধ্যে উদ্যোক্তাদের অংশ ৩ কোটি টাকা। বাকি ২৭ কোটি টাকা সকল বিনিয়োগকারীদের জন্য বরাদ্ধ রাখা হয়েছে। যা ইউনিট বিক্রয়ের মাধ্যমে উত্তোলন করা হবে। এক্ষেত্রে প্রতিটি ইউনিট মূল্য হবে ১০ টাকা।

ফান্ডটির উদ্যোক্তা ও সম্পদ ব্যবস্থাপক শান্তা অ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট। এর ট্রাস্টি ও কাস্টডিয়ান হিসেবে কাজ করছে ইনভেস্টমেন্ট করপোরেশন অব বাংলাদেশ (আইসিবি)।

স্টকমার্কেটবিডি.কম/বি/জেড

তিন মাসে ভারতে রফতানি বেড়েছে ১৪২ শতাংশ

52866_16120181016152804স্টকমার্কেটবিডি প্রতিবেদক :

চলতি অর্থ বছরের প্রথম প্রান্তিকে প্রতিবেশী দেশ ভারত থেকে রফতানি আয় বেড়েছে ১৪২ শতাংশ। এছাড়াও প্রধান দু’টি রফতানি দেশ যুক্তরাষ্ট্র ও জার্মানিতেও বেড়েছে আয়।

রফতানি উন্নয়ন ব্যুরো (ইপিবি) বলছে, ২০১৮-১৯ অর্থ বছরের জুলাই থেকে সেপ্টেম্বর মাসে এসব দেশ থেকে তৈরি পোশাক রফতানি খাতের আয় বেড়েছে।

এছাড়াও এশিয়ার প্রধান দু’টি দেশ জাপান ও চীন থেকে গত কয়েক মাসে রফতানি আয় হতাশাজনক হলেও চলতি অর্থ বছরের প্রথম প্রান্তিকে আয় বেড়েছে।

ভারত থেকে চলতি অর্থ বছরের প্রথম তিন মাসে রফতানি আয় বেড়ে হয়েছে সাড়ে ৩৭ কোটি মার্কিন ডলার। ২০১৭-১৮ অর্থ বছরে একই সময়ে যা ছিল সাড়ে ১৫ কোটি মার্কিন ডলার।

ভারত থেকে রফতানি আয়ের মধ্যে শুধু তৈরি পোশাক খাত থেকে বেড়েছে ১৬৭ শতাংশ। যা অর্থমূল্যে সাড়ে ১৪ কোটি মার্কিন ডলার। গত অর্থ বছরে একই সময়ে যা ছিল পাঁচ কোটি ৪০ লাখ মার্কিন ডলারের বেশি।

যুক্তরাষ্ট্র ও জার্মানিতে রফতানি আয় বেড়েছে যথাক্রমে ১৪ দশমিক ২৩ শতাংশ ও ১৪ দশমিক ৫৩ শতাংশ। এছাড়াও যুক্তরাজ্য ছাড়া ইউরোপের প্রায় সব দেশ থেকে প্রথম প্রান্তিকে রফতানি আয় বেড়েছে।

বলা হচ্ছে, ব্রেক্সিটের কারণে যুক্তরাজ্যে রফতানি আয়ের ক্ষেত্রে নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে।

জাপান ও চীনে রফতানি আয় বেড়েছে যথাক্রমে ৩১ দশমিক ৮৪ শতাংশ ও ২৪ দশমিক ৫৪ শতাংশ।

স্টকমার্কেটবিডি.কম/বি/জেড