গ্রামীণফোনের পাওনা লভ্যাংশের দাবিতে কর্মীরা

grameenনিজস্ব প্রতিবেদক :

পাওনা লভ্যাংশের দাবিতে গ্রামীণফোনের সাবেক কর্মীরা মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে। বর্তমান কর্মীদের তিন বছরের লভ্যাংশ হিসেবে পাওনা অর্থ পরিশোধ করলেও এ সময়ের মধ্যে প্রতিষ্ঠানটির ছেড়ে যাওয়া কর্মীদের তা এখনো দেয়নি গ্রামীণফোন ট্রাস্টি বোর্ড।

গতকাল রবিবার রাজধানীর বসুন্ধরায় কোম্পানিটির প্রধান কার্যালয়ের সামনে যৌথভাবে এ কর্মসূচি পালন করেছে গ্রামীণফোন এমপ্লয়িজ ইউনিয়ন (জিপিইউ), অ্যাকসেঞ্চার এমপ্লয়িজ ইউনিয়ন ও গ্রামীণফোনের সাবেক কর্মীরা।

শ্রম আইনের বিধান অনুযায়ী, প্রযোজ্য বেশকিছু শর্তপূরণ সাপেক্ষে প্রতিষ্ঠানের মুনাফার ৫ শতাংশ কর্মীদের মধ্যে বণ্টনের বাধ্যবাধকতা রয়েছে। ২০১০ সাল থেকে কর্মীদের এ লভ্যাংশ দেয়ার কথা গ্রামীণফোনের। এরই অংশ হিসেবে প্রতিষ্ঠানটি ২০১৩ সাল থেকে এ লভ্যাংশ প্রদান শুরু করে। তবে ২০১০, ২০১১ ও ২০১২-এ তিন বছরের লভ্যাংশের অর্থ বিভিন্ন জটিলতায় আটকে যায়। তিন বছরের লভ্যাংশ হিসেবে প্রায় সাড়ে ৪০০ কোটি টাকা গত বছর বোর্ড অব ট্রাস্টিজের (বিওটি) কাছে হস্তান্তর করলেও তা বিতরণের বিষয়ে কালক্ষেপণ করে গ্রামীণফোন কর্তৃপক্ষ।

বকেয়া লভ্যাংশ পরিশোধের দাবিতে ২০১২ সাল থেকে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করে আসছে জিপিইউ। এরই পরিপ্রেক্ষিতে সম্প্রতি ওই তিন বছরের বকেয়া লভ্যাংশ পরিশোধ শুরু করেছে বিওটি। তবে বর্তমান কর্মীদের পাওনা অর্থ পরিশোধ করা হলেও ওই তিন বছর প্রতিষ্ঠানটিতে কাজ করেছেন এমন সাবেক কর্মীদের লভ্যাংশের অর্থ এখনো পরিশোধ করা হয়নি। বর্তমানে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে কর্মরত গ্রামীণফোনের সাবেক এসব কর্মীর সংখ্যা প্রায় ১ হাজার ৬০০। আর লভ্যাংশ হিসেবে তাদের পাওনা রয়েছে প্রায় ৮০ কোটি টাকা।

জিপিইউ সূত্রে জানা গেছে, এক মাসেরও বেশি সময় পার হলেও সাবেক কর্মীদের পাওনা এ অর্থ প্রদানে কালক্ষেপণ করছেন বিওটিতে গ্রামীণফোন কর্তৃপক্ষের প্রতিনিধি। লভ্যাংশ প্রদানে গড়িমসির প্রতিবাদ ও দ্রুত পাওনা অর্থ পরিশোধের দাবিতে আজ বেলা ২টায় জিপি হাউজের সামনে গ্রামীণফোনের সাবেক কর্মীরা মানববন্ধন কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করছেন।

প্রসঙ্গত, অন্যায়ভাবে কর্মী ছাঁটাইয়ের অভিযোগে ২০১১ সালে গ্রামীণফোনে কর্মীদের মধ্যে বিক্ষোভের সূচনা হয়। শ্রম অধিকার নিশ্চিত করতে পরের বছরের মাঝামাঝি গঠন করা হয় জিপিইইউর ২১ সদস্যের কমিটি। পরবর্তীতে গ্রামীণফোন পিপলস কাউন্সিল (জিপিপিসি) নির্বাচনের উদ্যোগ নেয় গ্রামীণফোন কর্তৃপক্ষ। এতেও পূর্ণ প্যানেলে বিজয়ী হয় নিবন্ধনের অপেক্ষায় থাকা জিপিইইউ মনোনীত প্রার্থীরা।

স্টকমার্কেটবিডি.কম/এম/এইচ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *