দুই কোম্পানির প্রতিবেদন তদন্ত করবে বিএসইসি

bsecনিজস্ব প্রতিবেদক :

শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত দুই কোম্পানি ২০১৫-২০১৬ হিসাব বছরের অর্ধবার্ষিক আর্থিক প্রতিবেদনে শেয়ারপ্রতি আয়ে (ইপিএস) অস্বাভাবিক প্রবৃদ্ধি দেখিয়েছে। এমন খবরে এ দুই কোম্পানির শেয়ারদর অস্বাভাবিক হারে বেড়েছে। তাই এখানে কারসাজি হয়েছে কি না, তদন্ত করে দেখবে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ এন্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। অভিযুক্ত এ দুই কোম্পানি হলো- জ্বালানি ও বিদ্যুৎ খাতের ইস্টার্ন লুব্রিকেন্টস লিমিটেড এবং ওষুধ ও রসায়ন খাতের লিবরা ইনফিউশন।

এর মধ্যে ইস্টার্ন লুব্রিকেন্টস বাংলাদেশ একাউন্টিং স্ট্যান্ডার্ড (বিএএস) ৩৩ অনুযায়ী ইপিএস এবং বিএএস-১২ অনুযায়ী বিলম্বিত কর (ডেফার্ড ট্যাক্স) হিসাব করেনি বলে অভিযোগ রয়েছে। তাই এ বিষয়ে ব্যাখ্যা জানতে চেয়ে গত বুধবার বিএসইসি কোম্পানিটিকে চিঠি দিয়েছে। অপরদিকে একই ইস্যুতে লিবরা ইনফিউশনের বিরুদ্ধেও অভিযোগ রয়েছে। তাই এ কোম্পানিকেও শিগগিরই কারণ দর্শানোর নোটিশ দেয়া হবে বলে জানিয়েছে বিএসইসি সূত্র।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে বিএসইসির নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র মো. সাইফুর রহমান বলেন, সম্প্রতি প্রকাশিত এ দুই কোম্পানি অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। প্রতিবেদনে তারা ইপিএসে অস্বাভাবিক প্রবৃদ্ধি দেখিয়েছে। এমন খবরে কোম্পানিগুলোর শেয়ারদরও বেড়েছে। তাই এখানে কোনো কারসাজি হয়েছে কি না, তদন্ত করে দেখা হবে। তদন্তে কারসাজির প্রমাণ পাওয়া গেলে জড়িতদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

ইস্টার্ন লুব্রিকেন্টস : কোম্পানিটি ২০১৫-২০১৬ হিসাব বছরের অর্ধবার্ষিকের অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন গত ১৭ জানুয়ারি প্রকাশ করে। অর্ধবার্ষিক প্রতিবেদনের প্রথম তিন মাসে (জুলাই-সেপ্টেম্বর) কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি লোকসান হয়েছিল দশমিক ২০ টাকা এবং শেয়ারপ্রতি নগদ কার্যকর প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) ছিল ৩৫ দশমিক ২৪ টাকা।

অর্ধবার্ষিকের শেষ তিন মাসে (অক্টোবর-ডিসেম্বর) কোম্পানিটির মুনাফায় উল্লম্ফন ঘটে। এ সময় শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১০ দশমিক ৯৯ টাকা। যা এর আগের বছর একই সময়ে ছিল ১ দশমিক ০৪ টাকা। অর্থাৎ গত বছরের তুলনায় কোম্পানিটির ইপিএস ৯৫৭ শতাংশ বেড়েছে। এদিকে অর্ধবার্ষিকে (জুলাই-ডিসেম্বর) কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ১০ দশমিক ৭৯ টাকা।

যা এর আগের বছর একই সময়ে ইপিএস ছিল ১ দশমিক ৫৬ টাকা। অর্থাৎ গত বছরের তুলনায় কোম্পানিটির ইপিএস ৫৯২ শতাংশ বেড়েছে। কিন্তু আলোচিত অর্ধবার্ষিকিতে এনওসিএফপিএস হয়েছে (০.৭১) টাকা।

এদিকে ইপিএসে এমন উল্লম্ফনের খবরে কোম্পানিটির শেয়ারদর ১৫২ শতাংশ বেড়েছে। চলতি বছরের ১৪ জানুয়ারি কোম্পানিটির শেয়ারদর ছিল ৩০০ টাকা। পরের প্রত্যেক কার্যদিবস কোম্পানিটির শেয়ারদর ৮-৯ শতাংশ হারে বেড়েছে। আর এতে গত ১২ কার্যদিবসে কোম্পানিটির শেয়ার ৭৫৫ দশমিক ৯০ টাকা হয়েছে। এ সময় কোম্পানিটির মোট ৯ কোটি ৫৭ লাখ ২৫ হাজার টাকার এক লাখ ৫১ হাজার ৪০০টি শেয়ার এক হাজার ৯৭১ বার হাতবদল করে।

লিবরা ইনফিউশন : কোম্পানিটি ২০১৫-২০১৬ হিসাব বছরের অর্ধবার্ষিকের অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন গত ১ ফেব্রুয়ারি প্রকাশ করে। অর্ধবার্ষিক প্রতিবেদনের প্রথম প্রান্তিকে (জুলাই-সেপ্টেম্বর) কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি লোকসান হয়েছিল ৭ দশমিক ৬৬ টাকা এবং শেয়ারপ্রতি নগদ কার্যকর প্রবাহ (এনওসিএফপিএস) ছিল (দশমিক ৯০) টাকা।

অর্ধবার্ষিকীর শেষ তিন মাসে (অক্টোবর-ডিসেম্বর) অর্থাৎ দ্বিতীয় প্রান্তিকে কোম্পানিটির মুনাফায় উল্লম্ফন ঘটে। এ সময় শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৮ দশমিক ১৪ টাকা। যা এর আগের বছর একই সময়ে ছিল দশমিক ৩০ টাকা।

স্টকমার্কেটবিডি.কম/এমএ/এলকে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *