সিএসই চেয়ারম্যানকে কারণ দর্শানোর নোটিস দিল বিএসইসি

bsecনিজস্ব প্রতিবেদক :

নিয়ন্ত্রক সংস্থাকে ‘অসত্য তথ্য’সংবলিত চিঠি দেয়ায় চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের চেয়ারম্যান ড. আবদুল মজিদকে কারণ দর্শানোর নোটিস দিয়েছে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। সোমবার সিএসইতে এ নোটিস পাঠায় কমিশন, যার জবাব দিতে সাত কার্যদিবস সময় বেঁধে দেয়া হয়েছে।

কারণ দর্শানোর নোটিসে বিএসইসি উল্লেখ করে, ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) ওয়ালি-উল মারূফ মতিনের পদত্যাগপত্রকে কেন্দ্র করে বিএসইসির তদন্ত প্রতিবেদনের বিস্তারিত চেয়ে গত ৬ মার্চ বিএসইসিতে একটি চিঠি দেন সিএসই চেয়ারম্যান, যা সিএসই লিস্টিং রেগুলেশন ২০১৩ অনুসারে সিএসইর এখতিয়ারবহির্ভূত। এছাড়া তদন্ত প্রতিবেদনের বিস্তারিত চাওয়ার ব্যাপারে সিএসইর পর্ষদের অনুমোদন রয়েছে, চিঠিতে এমন চিত্র উপস্থাপন করা হলেও কমিশন এর সপক্ষে কোনো প্রমাণ পায়নি।

সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন অধ্যাদেশ, ১৯৬৯-এর ১৮ ধারা অনুসারে বিষয়টি কমিশনকে অসত্য তথ্য প্রদান বলে মনে করছে বিএসইসি, যার কারণ দর্শানোর নোটিস দেয়া হয়েছে সিএসইর পর্ষদ চেয়ারম্যানকে। এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় দালিলিক প্রমাণসহ সাত কার্যদিবসের মধ্যে নোটিসের জবাব দিতে বলা হয়েছে তাকে।

উল্লেখ্য, ‘পর্ষদ ও কিছু প্রভাবশালী ব্যক্তির সঙ্গে মতানৈক্যের’ কারণে গত বছরের শেষ দিকে পদত্যাগপত্র জমা দেন স্টক এক্সচেঞ্জটির তত্কালীন এমডি ওয়ালি-উল মারূফ মতিন। ঘটনার প্রকৃত কারণ অনুসন্ধানে কমিশন একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে। তদন্ত প্রতিবেদনের ভিত্তিতে ১০ ফেব্রুয়ারি এমডির পদত্যাগপত্র গ্রহণের পাশাপাশি ডিমিউচুয়ালাইজেশন আইন অমান্য করার অভিযোগে সিএসইর চিফ রেগুলেটরি অফিসার আহমেদ দাউদকে বরখাস্ত করে বিএসইসি। সে সময়ও সিএসই চেয়ারম্যানকে সতর্ক করা হয়।

স্টকমার্কেটবিডি.কম/এম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *